অনৈতিক সুবিধা না দেয়ায় শিক্ষককে হুমকি

স্টাফ রিপোর্টার
আওয়ামী লীগ নেতার মেয়েকে পরীক্ষার হলে অনৈতিক সুযোগ-সুবিধা না দেওয়ায় পরীক্ষা হলের পরিদর্শক শিক্ষককে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন নেতার ছোট ভাই যুবলীগ নেতা। রবিবার সকাল সোয়া ৯ টায় সুনামগঞ্জের তাহিরপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে এই ঘটনা ঘটে। এ  ঘটনায় তাহিরপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ কেন্দ্রের পরীক্ষার হলে দায়িত্বরত ১৬ জন শিক্ষক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন। ঘটনার জন্য উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলামের ভাই যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলামকে দায়ী করা হয়েছে।
অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, রফিকুল ইসলাম এসএসসি পরীক্ষার শুরু থেকে তার ভাতিজিকে পরীক্ষার হলে অনৈতিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য হল পরিদর্শক শিক্ষকদের উপর চাপ প্রয়োগ করছেন। পরীক্ষার হলে তার ভাতিজিকে অনৈতিক সহযোগিতা না করলেও শিক্ষকদের পরবর্তীতে দেখে নেয়ার হুমকি দেওয়া হয়। রোববার সকালেও একইভাবে হুমকি দেয়ার ঘটনায় নিজেদের নিরাপত্তা চেয়ে পরীক্ষার কেন্দ্র সচিব, হল সুপারসহ ১৬ জন শিক্ষক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।
পরীক্ষার কেন্দ্র সচিব জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  মোদচ্ছির আলম সুবল বলেন,‘হুমকিদাতা রফিকুল ইসলামের ভাতিজি এসএসসি পরীক্ষার্থী। শনিবারের গণিত পরীক্ষায় তার ভাতিজিকে কেন অনৈতিক সুযোগ দেয়া হল না, এজন্য সে অফিসে এসে পরীক্ষক শিক্ষক আজাদ মিয়াকে হুমকি দেয়। আমরা এই বিষয়টি তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করেছি এবং ই-মেইলে জেলা প্রশাসককে জানিয়েছি। আমরা স্পষ্ট জানিয়েছি আমাদের কোন শিক্ষকের নিরাপত্তা বিঘিœত হলে আমরা হলের দায়িত্ব পালন করব না।’
কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম রাব্বী বলেন,‘ তাৎক্ষণিক বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে মৌখিকভাবে ও পরে শিক্ষকদের পক্ষ থেকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।’
যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম বলেন,‘এই অভিযোগ মোটেই সত্য নয়। যারা অভিযোগ করেছেন তারা কেন অভিযোগ করলেন আমি জানি না।’
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূর্নেন্দু দেব বলেন,‘তাহিরপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ কেন্দ্রের দায়িত্বরত শিক্ষকদের একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। খোঁজ খবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। পরীক্ষা কেন্দ্র ও শিক্ষকদের সার্বিক নিরাপত্তা জোরদার করা হবে।’