আওয়ামী লীগ সরব নিরব বিএনপি

বিশেষ প্রতিনিধি
ঈদ শুভেচ্ছায় নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন সুনামগঞ্জের বিভিন্ন আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। কেউ কেউ ফেসবুকে ঈদের শুভেচ্ছা দিয়েছেন। গণসংযোগ, ইফতার মাহ্ফিলে অংশ নিয়ে কোন কোন মনোনয়ন প্রত্যাশী দলীয় নেতা-কর্মীদের পক্ষে রাখার চেষ্টা করছেন। এসব প্রচারণায় জেলাব্যাপী সরকার দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের পদচারণা সরব, অপেক্ষাকৃত নিরব বিএনপি।
সুনামগঞ্জ-১ (জামালগঞ্জ-ধর্মপাশা-তাহিরপুর ও মধ্যনগর) আসনে আওয়ামী লীগের বর্তমান সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি রেজাউল করিম শামীম, কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামীমা শাহ্রিয়ার ঈদ শুভেচ্ছার পোস্টার সাঁটিয়েছেন। আলাদা আলাদাভাবে দলীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে কয়েকটি ইফতার মাহ্ফিলও করেছেন তাঁরা। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দ রফিকুল হক সোহেল, সাবেক যুগ্ম-সচিব বিনয় ভূষণ তালুকদার, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম শামীম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট হায়দার চৌধুরী লিটন, ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি রফিকুল হাসান চৌধুরী নির্বাচনী এলাকার ধর্মপাশা, মধ্যনগর ও জামালগঞ্জে ঐক্যবদ্ধভাবে ইফতার মাহ্ফিলে অংশ নিয়ে কর্মীদের তাদের পক্ষে রাখার চেষ্টা করছেন। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী এই ৬ প্রার্থী সংসদ সদস্য রতনের বিরুদ্ধে জোট বেঁধেও প্রচারণা চালাচ্ছেন। এ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট আক্তারুজ্জামান সেলিম ও সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের নেতা অ্যাডভোকেট রঞ্জিত সরকার ও আওয়ামী লীগ নেতা ড. রফিকুল ইসলাম তালুকদারও ‘নৌকায় ভোট দিন’ আহ্বান জানিয়ে পোস্টার সাঁটিয়েছেন। আওয়ামী লীগের এতো সম্ভাব্য প্রার্থীর ছড়াছড়ি থাকলেও প্রচারণায় এই আসনে বিএনপি প্রার্থীরা নিরব।
বিএনপির এই আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য নজির হোসেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক সদস্য ডা. রফিক চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহসভাপতি ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মোতালেব খান, জেলা বিএনপির সহসভাপতি আনিসুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুলের প্রচারণা রমজানে ছিল কম। ঘটা করে দলীয় ইফতার আয়োজনও তাদের উদ্যোগে হয়েছে বলে শোনা যায়নি।
সুনামগঞ্জ-২ (দিরাই-শাল্লা) আসনে যুক্তরাজ্য বিএনপি নেতা তাহির রায়হান চৌধুরী ছাড়া বিএনপির অন্য কেউ দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে বড় আকারের ইফতার মাহ্ফিলের আয়োজন করেননি।
বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, সাবেক সংসদ সদস্য নাছির উদ্দিন চৌধুরী অবশ্য এই মাসেও গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। কয়েক দফায় গণসংযোগে অংশ নিয়েছেন সরকার দলীয় সংসদ সদস্য ড. জয়া সেন গুপ্তাও । দিরাই ও শাল্লা উপজেলা সদরে দলীয় ইফতার মাহ্ফিলেও অংশ নিয়েছেন তিনি। এই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী অ্যাডভোকেট শামছুল ইসলাম ও সামছুল হক চৌধুরী ফেসবুক প্রচারণায় সক্রিয়।
সুনামগঞ্জ-৩ (জগন্নাথপুর-দক্ষিণ সুনামগঞ্জ) আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। একইসঙ্গে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কয়েকটি ইফতার মাহ্ফিলেও অংশ নিয়েছেন এমএ মান্নান। বুধবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জে কর্মীসভা এবং কয়েক হাজার দলীয় নেত-কর্মীর ইফতার মাহ্ফিলের আয়োজন করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ। এম এ মান্নান ওই কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি ছিলেন। এর আগে জগন্নাথপুরেও আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ইফতার মাহ্ফিলে উপস্থিত ছিলেন তিনি।
এই আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ আবুল কাশেমও কয়েকটি ইউনিয়নে গণসংযোগ ও ইফতার মাহ্ফিলে অংশ নিয়েছেন। জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আজিজুস সামাদ ডনও জগন্নাথপুর ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জে তাঁর সমর্থকদের আয়োজনে ইফতার মাহ্ফিলে অংশ নিয়েছেন। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী কর্নেল অব. আলী আহমদ জগন্নাথপুরে ও জেলা বিএনপির সহসভাপতি ফারুক আহমদ দক্ষিণ সুনামগঞ্জে দলের নেতা-কর্মীদের আয়োজনে কয়েকটি ইফতার মাহ্ফিলে অংশ নিয়েছেন।
সুনামগঞ্জ- ৪ (সদর উত্তর-বিশ্বম্ভরপুর) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য জাপা নেতা অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ্’র সমর্থকরা ঈদ শুভেচ্ছার বিলবোর্ড ও পোস্টার সাঁটিয়েছেন। রমজানেও গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন এই সংসদ সদস্য। এই আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন রমজানের শুরুতেই সেহেরী-ইফতারের সময়সূচীর দৃষ্টিনন্দন ক্যালেন্ডার পৌঁছে দিয়েছেন মুসল্লিদের হাতে হাতে। বিশ্বম্ভরপুর ও সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার কয়েকটি স্থানে গণসংযোগ করেছেন তিনি। জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল হুদা মুকুট গণসংযোগ করছেন, তাঁর সমর্থকরা স্থানে স্থানে ঈদ শুভেচ্ছার বিলবোর্ডও সাঁটিয়েছে। সভাপতি মতিউর রহমানও গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। মোল্লাপাড়ায় দলের ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের আয়োজিত ইফতার মাহ্ফিলেও অংশ নিয়েছেন তিনি। এ আসনে ফেসবুক প্রচারণা চালাচ্ছেন- জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট খায়রুল কবির রুমেন, সাংগঠনিক সম্পাদক জুনেদ আহমদ ও দলীয় নেতা করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল।
এ আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী দলীয় চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা সাবেক হুইপ ফজলুল হক আছপিয়া মাঝে-মধ্যে দলীয় কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন। জেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দেওয়ান জয়নুল জাকেরীন উন্নয়ন কাজ দেখভালের সুবাদে ইউনিয়নে ইউনিয়নে গেলেও নির্বাচনী প্রচারণা এখনো শুরু করেননি। জাপার অপর মনোনয়ন প্রত্যাশী ইনান ইসমাম হোসেন চৌধুরী নির্বাচনী এলাকায় গণসংযোগ করছেন। নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজ বাসভবনে দলীয় কর্মী সভা এবং ইফতার মাহ্ফিলের আয়োজন করেছেন তিনি।
সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক – দোয়ারা) আসনের ছাতক উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বুধবার গোবিন্দগঞ্জের একটি কমিউনিটি সেন্টারে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ইফতার মাহ্ফিলের আয়োজন করা হয়। জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক এই ইফতার মাহ্ফিলে আগামী নির্বাচনের জন্য দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রস্তুত হবার নির্দেশনা দেন।
এই আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগ নেতা শামীম চৌধুরী কয়েকটি ইউনিয়নে গণসংযোগ ও ইফতার মাহ্ফিলে অংশ নিয়েছেন। গণসংযোগ করছেন প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতা আয়ুব করম আলীও। জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন ও কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী সম্পাদক মিজানুর রহমান চৌধুরীও দলের কয়েকটি কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন বলেন,‘নির্বাচনে প্রার্থী হতে মনোনয়ন চাইবেন অনেকে। রাজনৈতিক প্রতিযোগিতা থাকবে, মনোনয়ন যে পাবে সকলকে তাঁর পক্ষে থাকতে হবে, নৌকার বিরোধিতা চলবে না। আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের সকল নেতা-কর্মীদের এই মানসিকতায় প্রস্তুত করার কাজ শুরু করেছি আমরা।’
জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন বলেন,‘কয়েকটি গুরুতপূর্ণ বিষয়ে মনোযোগি বিএনপির নেতা-কর্মীরা, খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং গ্রহণযোগ্য নির্বাচন পদ্ধতি আদায় করার আন্দোলন। এই দাবি আদায় করেই নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবে বিএনপি।’