আগামী সপ্তাহেই পদ হারাচ্ছেন সিলেট আ.লীগের ৫ নেতা-পদ হারাচ্ছেন ধর্মপাশার রোকন

সু.খবর ডেস্ক
দলীয় পদ হারাচ্ছেন তৃণমূল আওয়ামী লীগের ২০০ নেতা। এরমধ্যে ৫ জন আছেন সিলেটের। তারা সবাই উপজেলা নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছিলেন। এদের অনেকেই উপজেলা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক বা জেলা-উপজেলার সহ-সভাপতি-যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের মতো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে আছেন।
অন্যদিকে এসব বিদ্রোহী প্রার্থীর প্রণোদনা জুগিয়েছেন ও দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে কাজ করেছেন এমন অর্ধশত এমপি-নেতাকে শনাক্ত করা হয়েছে। তাদেরও শাস্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে আওয়ামী লীগ। সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে বিদ্রোহীদের দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি ও কেন স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না কারণ জানতে চেয়ে চিঠি দেওয়া হচ্ছে। ইন্ধনদাতাদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না তা জানতে চাওয়া হবে। দলের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
জানা গেছে, পাঁচ ধাপের উপজেলা নির্বাচনে সারা দেশে প্রায় ৫ শতাধিক নেতা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছিলেন। এর মধ্যে দুই শতাধিক নেতা স্থানীয় আওয়ামী লীগ-যুবলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের দায়িত্বশীল পদ-পদবীতে রয়েছেন। যারা পদে নেই, তাদের আপাতত চিঠি দেওয়া হচ্ছে না। চিহ্নিত করে রাখা হচ্ছে। আওয়ামী লীগের আট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকরা ইতিমধ্যে তালিকা চূড়ান্ত করেছেন। সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই চূড়ান্ত চিঠি দেওয়া হবে।
দলীয় সূত্র জানায়, এর আগেও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে অনেক নেতাকে কারণ দর্শানোর নোটিস দেওয়া হয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত কঠোর কোনো পদক্ষেপ নেয়নি দল। তবে এবার আর কাউকে ছাড় দেওয়া হচ্ছে না। সে কারণে প্রথমে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হচ্ছে বিদ্রোহী প্রার্থীদের। পরবর্তীতে দলের সব পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হবে। একই সঙ্গে আগামীতে এসব ব্যক্তি যেন দলের পদ-পদবীতে আসতে না পারে সেজন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এসব বিদ্রোহীর মদদদাতাদের ইতিমধ্যে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের পদ-পদবীতে থেকে অব্যাহতি দেওয়া না হলেও ‘সময় মতো’ উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে।
এই তালিকায় রয়েছেন সিলেট বিভাগের আওয়ামী লীগের ৫ নেতা। তাদের মধ্যে একজন সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোজাম্মেল হোসেন রোকন। তিনি সুনামগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামী লীগের এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের ভাই।
এছাড়াও মৌলভীবাজার সদর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাচ্ছিরুল ইসলাম, সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা সহসভাপতি কামাল আহমদ, মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলা শাখার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ কে এম শফি আহমদ সলমান, বড়লেখা উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক সুয়েব আহমদ রয়েছেন এ তালিকায়। সূত্র: সিলেটভিউ