আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনের কর্নধার-পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিলেট অফিস
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিলেট ১ আসনের সংসদ সদস্য ড.এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, স্বপ্ন বড় হলে অর্জনও বড় হবে। এজন্য কঠোর পরিশ্রম ও অধ্যবসার মাধ্যমে নিজেদের গড়ে তুলতে হবে। আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনের কর্নধার। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে নিজেদের সোনার মানুষ হতে হবে। নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে তুলতে হলে সুশিক্ষা অর্জন করতে হবে। বর্তমান সরকার শিক্ষা উন্নয়নে ব্যাপক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। বিশেষ করে নারী শিক্ষার উন্নয়নে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। যা অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। একটি শিক্ষীত নারী একটি পরিবার তথা গোটা সমাজ ব্যবসার পরিবর্তন করতে পারে। তিনি সিলেটের নারী শিক্ষার উন্নয়নের কথা উল্লেখ্য করে বলেন, নারীদের এ অর্জন আমাদের ধরে রাখতে হবে।
রবিবার দুপুরে সিলেট জেলা পরিষদ হলরুমে জেলা পরিষদ সিলেট এর ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
জেলা পরিষদ সিলেট চেয়ারম্যান অ্যাড. মো. লুৎফুর রহমানের সভাপতিত্বে ও জেলা পরিষদ সদস্য মতিউর রহমান এবং সাটলিপিকার একেএম কামারুজ্জামান মাছুম’র সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন শাবিপ্রবি’র ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমদ, সিলেট এর জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম। সম্মনিত অতিথি’র বক্তব্য দেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী, সীমান্তিক এর চীফ পেট্রন, আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আহমদ আল কবির।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন কালেক্টরেট জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফিজ মাও. শাহ আলম, গীতা পাঠ করেন বিবেকানন্দ সমাজপতি। স্বাগত বক্তব্য দেন জেলা পরিষদ সিলেট এর প্রধান নিবার্হী কর্মকর্তা দেবজিৎ সিংহ।
সদস্যবৃন্দের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন আমাতুজ জাহুরা রওশন জেবীন রুবা, ইমাম উদ্দিন চৌধুরী, সাজনা সুলতানা হক চৌধুরী, নুরুল ইসলাম, মো. শামীম আহমদ। প্রধান অতিথিকে উপহার প্রদান করেন জেলা পরিষদ সদস্য মতিউর রহমান, নুরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথিকে উপহার প্রদান করেন জেলা পরিষদ সদস্য সায়িদ আহমদ সুহেদ।
অনুষ্ঠানে জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ২১৮জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে ১৫লক্ষ ৭হাজার টাকা শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করা হয়।