আজ বিপ্লবী বরুণ রায়’র মৃত্যুবার্ষিকী

স্টাফ রিপোর্টার
বিপ্লবী প্রসূন কান্তি বরুণ রায়’র অষ্টম মৃত্যুবার্ষিকী আজ শুক্রবার। ১৯২২ সালের ১০ নভেম্বর ভারতের বিহারের পাটনায় জন্মগ্রহণ করেন এই বিপ্লবী এবং ২০০৯ সালের ৮ ডিসেম্বর তার হাসননগরস্থ বাসভবনে ইহলোক ত্যাগ করেন।
বরুণ রায় অর্ধশতাব্দীরও বেশী সময় নিবেদিত ছিলেন কৃষক ক্ষেতমজুরদের অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে। এজন্য বিভিন্ন সময়ে তাঁকে প্রায় ১৪ বছর কারাবরণ করতে হয়েছে।
বরুণ রায়ের বাবা করুণা সিন্ধু রায় ছিলেন স্বদেশি আন্দোলনের নেতা। যদিও তাদের নিজেদের জমিদারির মতো ছোট খাটো মিরাশদারি ছিল, তবুও ব্রিটিশ ও জমিদারি প্রথার বিরুদ্ধেই তার বাবা ছিলেন নির্ভীক সংগ্রামী। সংগ্রামী পিতার রাজনৈতিক আদর্শ লালন করেই জীবন কাটিয়েছেন বরুণ রায়। ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে দেশ ও মানুষের পক্ষের সকল আন্দোলনে তিনি ছিলেন অগ্রভাগের        যুদ্ধা। সুনামগঞ্জ- ১ (ধর্মপাশা-জামালগঞ্জ-তাহিরপুর) আসন থেকে ১৯৮৬ সালে সংসদ সদস্য এবং এর আগে এমএলএও নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি।
তার একমাত্র ছেলে সাগর রায় ও পুত্রবধু পান্না রায় বর্তমানে আমেরিকা প্রবাসী। তার স্ত্রী শীলা রায় নারীনেত্রী, জেলা উদীচীর সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।
প্রয়াত এই বিপ্লবির মৃত্যু ার্ষিকী উপলক্ষে বরুণ রায় স্মৃতি সংসদের আয়োজনে শুক্রবার সন্ধ্যা ৬ টায় শহরের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা জগৎজ্যোতি পাঠাগার মিলনায়তনে স্মরণসভা আয়োজন করা হয়েছে। আলোচনা সভা শেষে মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, শীতবস্ত্র বিতরণ ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার প্রদান করা হবে।



আরো খবর