‘আবাদযোগ্য জমি পতিত রাখা যাবে না’

স্টাফ রিপোর্টার
তেল আমাদের একটি গুরুত্বপূর্ণ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য। বিভিন্ন দেশ থেকে আমাদের তেল কিনে আনতে হয়। আমাদের দেশে তেল জাতীয় ফসল উৎপাদন বাড়াতে হবে। তেলজাতীয় ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি করতে পারলে দেশ অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে। দেশের পতিত থাকা জমিতে যদি তেল জাতীয় ফসল উৎপাদন করলে মানুষের তেলের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে। এছাড়াও কৃষিবান্ধব সরকার কৃষির উন্নয়নে আধুনিক যান্ত্রিক কৃষি উপকরণ কৃষকদের মধ্যে পৌঁছে দিচ্ছে। আবাদযোগ্য কোন জমি পতিত রাখা যাবে না, সকল জমিতে চাষাবাদ করতে হবে। আমাদের দেশের অনেক তরুণ বিদেশে গিয়ে কৃষি কাজ করে। তারা যদি দেশে থেকে কৃষি অফিসের পরামর্শ নিয়ে পতিত জমিতে ফসল উৎপাদন করে তাহলে সাবলম্বী হতে পারে।
রবিবার সকাল ১০ টায় ছাতক উপজেলার ধারণ বাজারে তেল জাতীয় ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে বিনাসরিষা-৯ প্রদর্শনী উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের (আইন অধিশাখা) উপসচিব আলী আকবর। বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট উপকেন্দ্র ও ছাতক উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উদ্যোগে এই প্রদর্শনী উপকরণ অনুষ্ঠিত হয়।
তিনি আরও বলেন, আমাদের দেশের অনেক মানুষ সুষম খাদ্যের অভাবে পুষ্টিজনিত রোগে ভোগে। আমাদের দেশের অধিকাংশ জমি পতিত থেকে যায় সেই জমিতে যদি কৃষকরা উন্নত জাতের ফসল চাষ করে তাহলে আর্থনৈতিক সমস্যাও দূর করতে পারবে।
অনুষ্ঠানে বিনা উপকেন্দ্র অফিসার ইনচার্জ বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা কৃষিবিদ আব্দুর রাকিবের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগের উর্ধ্বতন বৈঞ্জানিক কর্মকর্তা কৃষিবিদ ড. রেজা মোহাম্মদ ইমন, ছাতক উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা তৌফিক হোসেন খান।
অনুষ্ঠানে শেষে কৃষকদের মাঝে উন্নত জাতের বীজ বিতরণ ও তেলজাতীয় ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্পের অর্থায়নে হাওরাঞ্চলে পতিত জমিতে সরিষা চাষ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের (আইন অধিশাখা) উপসচিব আলী আকবর।