‘আমি ও আমার পরিবার আপনাকে চিরদিন স্মরণে রাখব’

স্টাফ রিপোর্টার
গত বছরের ১০ অক্টোবর পরীক্ষায় যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় আমার বাম হাত ভেঙ্গে যায়। এরপর আমি আপনার শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট্রে আবেদন জানাই। আমাকে ৫০ হাজার টাকা অনুদান মঞ্জুর করা হয়। এর ফলে এখন আমি সুস্থ আছি। আমি এবং আমার পরিবার আপনাকে চিরদিন স্মরণে রাখব।
দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে উপবৃত্তি, টিউশন ফি, ভর্তি সহায়তা ও চিকিৎসা অনুদান বিতরণ কার্যক্রম অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সরকারি দিগেন্দ্র বর্মন ডিগ্রি কলেজের স্নাতক ৩য় বর্ষের ছাত্রী মোছা. আলহা।
এসময় প্রধানমন্ত্রী তাকে বলেন তুমি এখন কেমন আছো ? হাতের কি অবস্থা এখন। ভালো হয়েছে?
উত্তরে মোছা. আলহা জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমি এখন খুবই সুস্থ আছি। আপনাদের দোয়ায় ভালো আছি। অপারেশন হয়েছে আমার হাতে।
প্রধানমন্ত্রী তাকে বলেন, ঠিক আছে। তুমি ভালো থাক, সুস্থ থাক, এই দোয়া করি।
এর পূর্বে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাদি উর রহিম জাদিদ বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাষ্ট থেকে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের ৪,৯৬৯ জন শিক্ষার্থীকে ৪১ লক্ষ ৮৮ হাজর টাকা এবং ৩৫৫ জন স্নাতক ও সমমান শিক্ষার্থীকে ১৯ লক্ষ ৯৫ হাজার ১০০ টাকা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও ২০১৯ সালের ১০ অক্টোবর উপজেলার একজন শিক্ষার্থী সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হওয়ায় ৫০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করা হয়।
তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার এই শিক্ষা সহায়তা প্রদান হাওর বেষ্টিত উপজেলায় শিক্ষার হার বৃদ্ধি, নারীর ক্ষমতায়ন, ঝরে পড়া রোধ করতে অগ্রণি ভূমিকা পালন করছে।