আলোচনায় বরখাস্তকৃত চেয়ারম্যান সাহেল

স্টাফ রিপোর্টার
ছাতকের সিংচাপইড় ইউনিয়ন পরিষদের সেই সাবেক চেয়ারম্যান (সাহাব উদ্দিন মো. সাহেল)’ আবারও আলোচনায়। মঙ্গলবার বিকালে ছাতকে চাঁদাবাজি ও ফেসবুকে কটুক্তি নিয়ে আওয়ামী লীগের দুইপক্ষের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে সাহেল নিজের মুঠোফোন থেকে ছাতক পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী’র ঘনিষ্টজন হিসাবে পরিচিত শাহীন চৌধুরীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। তাতে পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয় । রাতে সংঘর্ষের আগে-পরে সাহেল সংঘর্ষের বিষয়ে সক্রিয় ছিলেন।
প্রসঙ্গত. ২০১৭ সালের ১৩ আগস্ট ছাতক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবু ছাদাত লাহিনসহ ৮ জন জনপ্রতিনিধি জেলা প্রশাসকের নিকট দায়ের করা আবেদনে উল্লেখ করেছিলেন ‘ছাতক উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের চেয়ারম্যান উপজেলার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে উপজেলা পরিষদের প্রথম পরিচিতিমূলক সভা থেকে শুরু করে মাসিক সমন্বয় সভার পরিবেশ নষ্ট করে দেন সাহেল। তার বিরুদ্ধে ওই ইউপি’র ৩ সদস্যকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করারও অভিযোগ ওঠেছিল।
গত বছরের ১৭ মে ছাতকের উপজেলা নির্বাহী কর্মকতাকে অবরূদ্ধ করে ফেসবুকে লাইভ দিয়েছিলেন সাহেল।
জনপ্রতিনিধিদের দায়ের করা লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক এমরান হোসেন সরেজমিনে এসব বিষয়ে তদন্ত
করেন। পরে ২০১৭ সালের জুলাই মাসে বরখাস্ত হন এই চেয়ারম্যান।
সম্প্রতি এই ইউপি’র উপ-নির্বাচনে মোজাহিদ আলী নামের আরেক আওয়ামী লীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন।
মুঠোফোন বন্ধ থাকায় এসব বিষয়ে সাহাব উদ্দিন মো. সাহেলের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।