আ.লীগের ৪০ সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে

বিশেষ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জ সদর ও শান্তিগঞ্জ উপজেলার ১৬ ইউনিয়নের সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ডে জমা দেওয়া হয়েছে। দলের একাধিক সূত্র এই তথ্য জানিয়েছে। তৃণমূল ও উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে সম্ভাব্য তালিকা জেলা কমিটিতে আসার পর জেলা কমিটির পক্ষ থেকে তালিকা বুধবার সংগঠনের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডে জমা দেওয়া হয়েছে। জেলা কমিটি ছাড়াও কেউ কেউ সরাসরি নাম কেন্দ্রীয় স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডে জমা দিয়েছেন বলে সম্ভাব্য একাধিক প্রার্থী জানিয়েছেন।
সদর উপজেলার নয় ইউনিয়নের মধ্যে কোরবাননগর ইউনিয়নে শামছুদ্দিন আহমদ ও আফজাল হোসেন, মোল্লাপাড়ায় মুক্তিযোদ্ধা মনির উদ্দিন, আব্দুস ছালাম, বকুল চন্দ্র দাস ও ইশতিয়াক আলী রিপন , সুরমা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুছ ছাত্তার ডিলার, তাজুল ইসলাম ও জাকির হোসেন, জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নে বীর মুক্তিযোদ্ধা মকসুদ আলী, আবু হানিফ ও আবুল কালাম আজাদ রাসেল, রঙ্গারচর ইউনিয়নে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মজিদ ও আবুল কালাম, গৌরারং ইউনিয়নে সারোয়ার মিয়া, ইয়ার লতিফ, সালমা বেগম ও চম্পা বেগম, লক্ষণশ্রী ইউনিয়নে অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান, আনোয়ারুল হক, জয়নাল মিয়া হাজারী ও আপ্তাব উদ্দিন, মোহনপুর ইউনিয়নে আব্দুর রশিদ ও সীতেশ তালুকদার মঞ্জু, কাঠইড় ইউনিয়নে অ্যাডভোকেট বোরহান উদ্দিন, আজিজুর রহমান ও দেলোয়ার হোসেন।
কোরবাননগর ইউনিয়নের একজন সম্ভাব্য প্রার্থী জানিয়েছেন, ইউনিয়ন, উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের সুপারিশ ছাড়াও কিছু সম্ভাব্য প্রার্থী সরাসরি কেন্দ্রীয় স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডে দলীয় মনোনয়ন ফরম পূরণ করে জমা দিয়েছেন। শান্তিগঞ্জের ৭ ইউনিয়নের ক্ষেত্রেও এটি হয়েছে।
শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৭ ইউনিয়নের মধ্যে পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে রাশিকুল আহমেদ, ফয়জুল করিম ও আতিক মিয়া, পশ্চিম পাগলায় জগলুল হায়দার, সুরঞ্জিত টপ্পা ও বর্তমান চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম, দরগাপাশায় বর্তমান চেয়ারম্যান মনির উদ্দিন, মাহবুবুল হক শাহীন ও আবু খালেদ চৌধুরী, পশ্চিম বীরগাঁওয়ে দেবাংশু শেখর দাশ, শাহীন আহমদ ও জমির হোসেন, পূর্ব বীরগাঁওয়ে রিয়াজুল ইসলাম ও শহীদুল ইসলাম শহীদ, জয়কলস ইউনিয়নে মনিরুজ্জামান বারী, শিমুলবাঁক ইউনিয়নে আতাউর রহমান ও বর্তমান চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জিতু, পাথারিয়ায় শামছুল ইসলাম, মোস্তফা মিয়া ও শহীদুল ইসলাম।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন বললেন, সদর ও শান্তিগঞ্জের সবকয়টি ইউনিয়ন কমিটি ও উপজেলা কমিটি সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকা দিয়েছে। এই তালিকা যাচাই-বাছাই করে কেন্দ্রীয় স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডে জমা দেওয়া হয়েছে। জমা দেওয়া সম্ভাব্য প্রার্থীদের নামের তালিকা এখন বলা সম্ভব নয়। কেন্দ্রীয় স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড প্রার্থীতা চূড়ান্ত করবেন।
এই দুই উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের মনোনয়ন দাখিল আগামী দুই নভেম্বর, বাছাই চার নভেম্বর, এবং ভোট হবে ২৮ নভেম্বর।