এই স্বীকৃতি আমাদের দায়িত্ব আরও বাড়িয়ে দিলো

প্রিন্ট মিডিয়ার সাথে পাল্লা দিয়ে এখন ডিজিটাল মিডিয়ার প্রসার ঘটছে। ক্ষেত্রবিশেষে দেখা যায় কোনো মিডিয়া যতটা না প্রিন্ট ভার্সনে গুরুত্ব দিচ্ছে তার চাইতে অনেক বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে ডিজিটাল ভার্সনে। যুগের পরিবর্তনের সাথে খাপ খাওয়াতে মিডিয়াকেও এই ইতিবাচক পরিবর্তন ধারার সাথে সংযুক্ত হতে হচ্ছে। তথ্যপ্রযুক্তির সুযোগ বাড়ার কারণে মানুষ এর সুফল পেতে অধিকমাত্রায় আগ্রহী। মানুষ যখন যেখানে থাকে, যদি তার হাতে একটি স্মার্ট ফোন থাকে; তাহলে সে যখন-তখন সর্বশেষ তথ্য জানতে আগ্রহী হয়। মোবাইল বাটনে ক্লিক করে এই জানার কাজটি খুব সহজেই করে নেয়া যায়। এতে ঘটনাপ্রবাহের তাৎক্ষণিক বিবরণ জানার একটি পরিবেশ তৈরি হয়েছে। যখনই ঘটনা তখনই খবর, এটি এখন মিডিয়া জগতের প্রধান অনুসৃত নীতিমালা। ফলে দেশে যত মিডিয়া আছে প্রত্যেকের রয়েছে পৃথক পৃথক অনলাইন ভার্সন। মিডিয়াকে টিকে থাকতে হলে পরিবর্তনের এই নতুন হাওয়ার সাথে ভালোভাবে সম্পৃক্ত হতে হবে।
দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর জেলার প্রথম নিয়মিত প্রকাশিত দৈনিক পত্রিকা। দশ বছর অতিক্রান্ত হয়ে পত্রিকাটি একাদশ বর্ষে পদার্পণ করেছে। মিডিয়া জগতের পরিবর্তনের পালাবদলের সময়ে দৈনিক সুনামগঞ্জের খবরও যে পিছিয়ে নেই তার প্রমাণ মিলল এর অনলাইন বা ডিজিটাল ভার্সনকে ফেসবুক কর্তৃক মনিটাইজেশন স্বীকৃতি প্রদানের মাধ্যমে। গতকাল দৈনিক সুনামগঞ্জের খবরে এই সুসংবাদটি দেয়া হয়েছে। মনিটাইজেশনের অর্থ হলোÑ আইনসংগত চুক্তি, যার ফলে পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে প্রচারিত কন্টেন্টে বিজ্ঞাপনের আয়ের হিস্যা পাওয়ার অধিকার। সুনামগঞ্জের খবরের ফেসবুক পেজকে দাপ্তরিকভাবে এই স্বীকৃতি অর্জনের তথ্য জানিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। পত্রিকার প্রকাশের নিয়মিত ধারাবাহিকতার এই পর্যায়ে এটি দৈনিক সুনামগঞ্জের খবরের আরেকটি বড় অর্জন। এই শুভ মুহূর্তে আমরা সম্মানিত পাঠকবৃন্দকে উষ্ণ অভিনন্দন জানাই। পাঠক সমাজের দৃঢ় সমর্থন ও সাথে থাকার কারণেই এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর জন্মলগ্ন থেকেই পাঠক আস্থা বজায় রাখার বিষয়ে সচেতন থেকেছে। ফলে পত্রিকার প্রিন্ট ভার্সনকে যেমন পাঠক সমাজ অব্যাহত সমর্থন জুগিয়ে গেছেন একই রকমভাবে এখন পত্রিকার অনলাইন ভার্সনকেও গ্রহণ করেছেন। এই পাঠক আস্থাই পত্রিকার মূল মূলধন। এই মূলধনকে আঁকড়ে ধরেই সুনামগঞ্জের খবর অসীম ভবিষ্যতের উন্মুক্ত আকাশে উড়তে চায়।
দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর প্রধানত সুনামগঞ্জ কেন্দ্রীক খবরকেই প্রাধান্য দিয়ে এসেছে। জেলার বিভিন্ন প্রান্তে যেসব সংবাদমূল্য সম্পন্ন ঘটনা ঘটে থাকে তা পত্রিকার প্রিন্ট ও অনলাইন সংস্করণে দ্রুত প্রচারের চেষ্টা করে। ফলে সুনামগঞ্জ জেলার প্রাত্যহিক খবর জানার প্রধান অবলম্বন হলো এই পত্রিকা। যারা প্রিন্ট কপি পান না, জেলার বাইরে ও বিদেশে অবস্থানকারী সুনামগঞ্জি পাঠক সমাজ, এমনকি জেলার ভিতরের পাঠকরাও এখন সুনামগঞ্জের যেকোনো খবরের জন্য পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ www.sunamganjerkhobor.com ও পত্রিকার ফেসবুক পেজ নিয়মিত ভিজিট করেন। অনেকের কাছে ঘুম থেকে উঠে একনজরে নিজের এলাকার খবর জানার সহজ অবলম্বন হলো দৈনিক সুনামগঞ্জের খবরের ডিজিটাল সংস্করণ। এই যে পাঠক সমর্থন সেটুকু যেকোনো মূল্যে অব্যাহত রাখার নীতিতে আমরা বিশ্বাসী। আর এর পূর্বশর্ত হলো- বিশ্বাসযোগ্য ও নির্মোহভাবে খবর উপস্থাপন করা। বিশ্বব্যাপী সমাদৃত ও বহুল ব্যবহৃত ফেসবুক কর্তৃক দৈনিক সুনামগঞ্জের খবরকে মনিটাইজেশন স্বীকৃতি প্রদানের মাধ্যমে আমাদের যে নতুন যাত্রা শুরু হলো সেই যাত্রার অন্তহীন পথ আমরা কেবল পাঠক আস্থা ধরে রেখেই চলতে চাই। সম্মানীত বিপুল পাঠক ও ভিউয়ার সমাজের কাছে আমাদের আবেদন একটাই, আপনারা আমাদের সমর্থন দিয়ে যান, আমরা আপনাদের আস্থার প্রতিদান দিতে সর্বদা সচেষ্ট থাকবো। এই শুভ মুহূর্তে আবারও সকলকে অভিনন্দন।