এখনও জমেনি কার্যালয়গুলো

স্টাফ রিপোর্টার
নির্বাচনী কার্যালয়গুলো জমছে না। সুনামগঞ্জ পৌরসভায় নির্বাচনোৎসব সবচেয়ে বেশি জমে থাকে ষোলঘর এলাকায়। ষোলঘর পয়েন্টে সকল প্রার্থীরই নির্বাচনী ক্যাম্প দেখা যায়। এবারও এই এলাকায় ২০০ গজের মধ্যে আওয়ামী লীগ প্রার্থী নাদের বখ্ত এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী দেওয়ান গণিউল সালাদীনের নির্বাচনী ক্যাম্প রয়েছে।
শনিবার সন্ধ্যা ৬ টায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী নাদের বখ্ত’এর ষোলঘর ক্যাম্পে গিয়ে ২-৩ জন সমর্থককে রশিতে পোস্টার লাগাতে দেখা যায়। অন্য কোন কর্মী সমর্থক অফিসে নেই।
এই অফিসের কর্মী আজিজ মিয়া বললেন, ‘রাত সাড়ে ৮ টায় আসলে কিছু কর্মী-সমর্থক অফিসে পাবেন। তবে অফিস জমতে জমতে আরও ৪-৫ দিন লাগবে।
দেওয়ান গণিউল সালাদীনের ক্যাম্পে বসা ছিলেন বয়োজ্যেষ্ঠ ৩-৪ জন। এঁদের একজন আব্দুল লতিফ বললেন,‘রাত ৮ টা সাড়ে ৮ টায় অফিস জমে। কয়েকদিন পর আরও বেশি জমবে।’
নির্বাচনের মেয়র পদে প্রার্থী আছেন তিনজন। এঁরা হলেন আওয়ামী লীগের নাদের বখত। তিনি প্রয়াত মেয়র আয়ূব বখত জগলুলের ছোট ভাই। বিএনপির দেওয়ান সাজাউর রাজা চৌধুরী। অন্যজন স্বতন্ত্র প্রার্থী, দেওয়ান গণিউল সালাদীন। তাঁর প্রতীক মোবাইলফোন। গণিউল সালাদীন ও সাজাউর রাজা চৌধুরী দুজনই মরমি কবি হাসন রাজার প্রপৌত্র, সম্পর্কে চাচাতো ভাই। দেওয়ান গণিউল সালাদীন সুনামগঞ্জ পৌরসভার টানা তিন বারের চেয়ারম্যান প্রয়াত মমিনুল মউজদীনের ছোট ভাই।
সুনামগঞ্জ পৌরসভায় সর্বশেষ ২০১৫সালের ৩০ ডিসেম্বর ভোট হয়। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে নির্বাচিত হন আয়ূব বখত জগলুল। তিনি পেয়েছিলেন ১৪ হাজার ৮৪৫ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী দেওয়ান গণিউল সালাদীন। তিনি পেয়েছিলেন ১০হাজার ৪৮৬ ভোট। তৃতীয়স্থানে ছিলেন বিএনপির প্রার্থী মো. শেরগুল আহমেদ। তিনি পেয়েছিলেন ২ হাজার ৪১৪ ভোট।