ওজনে কম দেয়ার অপরাধে ব্যবসায়ীকে মারধর

ছাতক প্রতিনিধি
ছাতকে ওজনে কম দেয়ার অপরাধে বুরহান উদ্দিন নামের এক ব্যবসায়ীকে উত্তম-মধ্যম দেয়া হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার বিকেলে শহরের পানহাটা এলাকায়। এক সময় অবস্থা বেগতিক দেখলে পণ্যর মূল্য ফেরত দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে এ অসাধু ব্যবসায়ী। বুরহান উদ্দিন শহরের মাছ বাজার সংলগ্ন মোরগ মহলের পোল্ট্রি মোরগ ব্যবসায়ী।
স্থানীয়রা জানান, ডিজিটাল মাপযন্ত্র ব্যবহার করে দীর্ঘদিন ধরে মাছ বাজার সংলগ্ন মোরগ মহলে পোল্ট্রি মোরগের ব্যবসা করে আসছে বুরহান উদ্দিন। লক্কর-ঝক্কর মাপযন্ত্রটি দিয়ে সুকৌশলে প্রতি কেজি মোরগে দেড় শ’ থেকে দু’শ গ্রাম কম দিয়ে ক্রেতাদের প্রতারিত করে আসছে এ মোরগ ব্যবসায়ী। স্থানীয় ব্যবসায়ী হওয়ার সুবাধে ওজনে কম দিয়েও ক্রেতাদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করা এ ব্যবসায়ীর নিত্য-নৈমিত্তিক ঘটনা। ১ম রমজান শুক্রবার বিকেলে কালারুকা ইউনিয়নের বাসিন্দা জনৈক ক্রেতা দেড় কেজি ওজনের একটি মোরগ ক্রয় করেন বুরহান উদ্দিনের দোকান থেকে। কেনার সময়ই ক্রেতার সন্দেহ সৃষ্টি হলে ক্রয় করা মোরগ অন্যত্র নিয়ে ওজন করলে তিনি ওজনে কম দেখতে পান। সেখানে ওজনে মোরগটি দেড় শ’ গ্রাম কম হলে উত্তেজিত হয়ে ওই ক্রেতা মোরগ দোকান থেকে ব্যবসায়ীর মাপযন্ত্রটি নিয়ে যান। এ সময় ব্যবসায়ী পাল্টা উত্তেজিত হয়ে জোরপূর্বক মাপযন্ত্র ফেরৎ নিতে এসে বিপাকে পরে। উত্তেজিত ক্রেতা ওই ব্যবসায়ীকে ধরে উত্তম-মধ্যম দিয়ে তার মাপ যন্ত্রটি ঘুরিয়ে দেন। এক পর্যায়ে বাজারের ব্যবসায়ীরা তার কাছ থেকে মোরগের সমমূল্য আদায় করে তাকে জনতার রোষানল থেকে রক্ষা করেন। একাধিক ভোক্তা জানান, বাজারে কোন ধরনের মনিটরিং ও সরকারী নিয়ন্ত্রণ না থাকায় সাধারণ ক্রেতাগণ অসাধু এসব ব্যবসায়ীদের কাছে প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছেন।