‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় আজন্ম লড়াই করে গেছেন তিনি’

আবু হানিফ চৌধুরী, দিরাই
দিরাইয়ে সাবেক মন্ত্রী, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও সাবসেক্টর কমান্ডার সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে শোকর‌্যালি, আলোচনা সভা ও সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের মাধ্যমে পালন করা হয়েছে।
সোমবার বেলা ১১টায় উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয় থেকে এক শোকর‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি পৌর সদরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে দলীয় কার্যালয়ের পাশে প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। প্রথমেই আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের পক্ষে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে সমাধিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন সুরঞ্জিত স্ত্রী ড. জয়া সেনগুপ্তা এমপি।
এরপর দিরাই প্রেসক্লাব, প্রশিক্ষিত যুব সংসদ (প্রযুস), সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত স্মৃতি পরিষদ ও স্কুল কলেজসহ বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। দুপুর ১টায় দলীয় কার্যালয় প্রাঙ্গণে উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে শুরু হয় আলোচনা সভা।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আছাব উদ্দিন সরদারের সভাপতিত্বে ও আওয়ামীলীগ নেতা অ্যাড. শহিদুল হাসমত খোকন এবং পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জুয়েল মিয়ার যৌথ পরিচালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি     হিসেবে বক্তব্য রাখেন ড. জয়া সেনগুপ্তা এমপি।
প্রধান বক্তা হিসেবে সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা করেন ছাতক-দোয়ারা আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক।
এছাড়াও বক্তব্য রাখেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের একমাত্র সন্তান সৌমেন সেনগুপ্ত, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সিরাজ উদ দৌলা তালুকদার, প্রেসক্লাব সভাপতি হাবিবুর রহমান তালুকদার, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম শফিক, ছাতক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. লাহিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লুৎফুর  রহমান এওর মিয়া, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রঞ্জন রায়, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাহজাহান সরদার, কৃষকলীগের আহ্বায়ক তাজুল ইসলাম, প্যানেল মেয়র বিশ^জিৎ রায়, যুবলীগের মোহন চৌধুরী, সৌমেন চৌধুরী, রাজীব চৌধুরী, ছাত্রলীগের সাহেল চৌধুরী, আল মামুন, উজ্জল চৌধুরী, মান্না তালুকদার লিমন প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. জয়া সেনগুপ্তা বলেন, সব সময়ই তিনি (সুরঞ্জিত) বলতেন সমস্ত দেশটাই আমার পরিবার, প্রতিটি মানুষই আমার আত্মীয়। মনোবল ছিল দৃঢ়, চরম ক্রান্তিকালেও আমি উনাকে ভেঙ্গে পড়তে দেখিনি। দীর্ঘ সংসার জীবনে আমি ছিলাম অত্যন্ত সুখী। উনাকে হারিয়ে আমি যখন অন্ধকার দেখছিলাম, তখনই প্রথম ফোন করে আমাদের সভানেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে ‘পাশে আছি পাশে থাকবো’ বলে অভয় দিয়েছিলেন। উনি উনার কথা রেখেছেন, ছায়ার মত আমাদের পাশে রয়েছেন। দেশের মানুষের যে ভালবাসা পেয়েছি, তাতে বলতেই হচ্ছে আমি স্বামী হারিয়েছি, কিন্তু সর্বহারা হইনি। আপনারাই আমার আত্মার আত্মীয়-স্বজন।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে মহিবুর রহমান মানিক বলেন, অসাম্প্রদায়িক চেতনায় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় আজন্ম লড়াই করে গেছেন সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে দেশের প্রতিটি ক্রান্তিকালেই তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। উনার মৃত্যুতে রাজনীতিতে যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে তা কাটিয়ে উঠা অসম্ভব। বর্তমান সংসদের প্রতিটি সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের অনুপস্থিতি মারাত্মকভাবে অনুভব করছে।
এদিকে সন্ধ্যায় সুনামগঞ্জ জেলা জজকোর্টের পিপি এ্যডভোকেট খায়রুল কবির রুমেন, সুনামগঞ্জ জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জুনেদ আহমদ, দৈনিক সুনামগঞ্জ বার্তা পত্রিকার সম্পাদক আহমেদুজ্জামান হাসান ও জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তাদির আহমেদ মুক্তা সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

WP_20180205_023আইনজীবীদের স্মরণসভা
আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, সাবেক মন্ত্রী, বিশিষ্ট পার্লামেন্টারিয়ান সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের মৃত্যুবার্র্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার জেলা আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাড. আফতাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নজরুল ইসলামের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাড. হুমায়ুন
মঞ্জুর চৌধুরী, অ্যাড. রইছ উদ্দিন আহমদ, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ জিয়াউল ইসলাম, পিপি অ্যাড. খায়রুল কবির রোমেন, অ্যাড. ফুল কুমার দাস, অ্যাড. দিলীপ কুমার দাস, সাবেক সভাপতি অ্যাড. রবিউল লেইছ, সাবেক পিপি অ্যাড. শফিকুল আলম, অ্যাড. চাঁন মিয়া, পিপি( নারী ও শিশু) অ্যাড. নান্টু রায়, সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. শুকুর আলী, এডিশনাল পিপি অ্যাড. শামছুল আবেদীন প্রমুখ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন অ্যাড. আইনুল ইসলাম বাবলু, অ্যাড. আব্দুল হামিদ, অ্যাড. বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী, অ্যাড মো. রবি উদ্দিন (১), অ্যাড. প্রদীপ আচার্য্য, অ্যাড. বুরহান উদ্দিন দোলন, অ্যাড. আবুল মজাদ চৌধুরী, অ্যাড. পঙ্কজ দাস, অ্যাড. মো. ফরিদ উন নবী, অ্যাড. মিজানুর রহমান, অ্যাড. মোহাম্মদ মানিক, অ্যাড. মজিবুর রহমান, অ্যাড.শাহারুল ইসলাম, অ্যাড. নাছিরুল হক আফিন্দী, অ্যাড. আজিজুর রউফ, অ্যাড. ছাইদুর রহমান তালুকদার, অ্যাড. ছায়াদুর রহমান, অ্যাড. জমির উদ্দিন, অ্যাড. জুলহাস মিয়া, অ্যাড. হাসান মাহবুব সাদি, অ্যাড. সবিতা চক্রবর্তী, অ্যাড. বুরহান উদ্দিন, অ্যাড. সুখেন্দু কুমার রায়, অ্যাড. রজত কান্তি দে, অ্যাড. আব্দুল খালেক, অ্যাড. আল আমিন, অ্যাড. মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, অ্যাড. স্বপন রায় সফু, অ্যাড. অরুনাভ দাস, অ্যাড. মো আবুল হোসেন (২), অ্যাড. সফি উল্লা, অ্যাড. আব্দুল কাদির।
বক্তারা সুরঞ্জিন সেনগুপ্ত’র বর্ণাঢ্য ও কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা করেন এবং তাঁর বিদেহী আত্মার কল্যাণ কামনা করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি



আরো খবর