গরুকে ধান খাওয়ানোর জেরে নিহত ১

আলী আহমদ, জগন্নাথপুর
জগন্নাথপুরের পল্লীতে গরু দিয়ে ফসলি জমিনের ধান খাওয়ানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নুরুল হক (৫০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৪ জন। তাদেরকে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ররিবার দুপুর ১২ টার দিকে উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের চমকপুর গলাহাটি নামক স্থানে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, রানীগঞ্জ ইউনিয়নের কুবাজপুর (নতুনপাড়া) গ্রামের নূরুল হকের বোরো ধান ক্ষেতে পার্শ্ববর্তী পাইলগাঁও ইউনিয়নের হাড়গ্রাম গ্রামের বৈষ্ণব কর ও পাখি করের লোকজন গরু দিয়ে ধান খাওয়ানোকে কেন্দ্র করে নুরুল হকের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় প্রতিপক্ষের লোকজনের সাথে। এক পর্যায়ে উভয়পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হন। এতে ঘটনাস্থলেই নুরুল হক মারা যান। এ ঘটনায় নিহত নুরুল হকের পক্ষের আরও চারজন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন গুলজার মিয়া (২৮), শরিফ উদ্দিন (২২) , আল আমিন (১৭) ও সাইদুর রহমান (২৫)। তাদেরকে জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সংঘর্ষে জড়িত থাকার সন্দেহে তিনজনকে আটক করেছে। আটককৃত হলেন হাড়গ্রামের কানাই করের ছেলে করুণা কর (৪৫), সুভাষ করের স্ত্রী শিল্পী রানী কর (৩৫) ও পাখি করের স্ত্রী সীমা রানী কর।
সংঘর্ষে নিহত নুরুল হকের ছেলে আহতাবস্থায় চিকিৎসা নিতে আসা সাইদুর রহমান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ প্রতিবেদককে বলেন, প্রতিপক্ষের লোকজন অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আমাদের ওপর অর্তকিত হামলা চালিয়ে আমার বাবাকে গলা টিপে হত্যা করেছে। তিনি বলেন, পাখি করের গরু আমাদের ফসলি জমির ধান খাওয়ায় এ নিয়ে বাবার সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে হামলাকারীরা সংঘবদ্ধ হয়ে আমাদের ওপর হামলা করে। তাদের হামলায় আমিসহ আরো চারজন আহত হয়েছেন।
জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগে দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা: মধু রঞ্জন ধর বলেন, সংঘর্ষে নিহত ব্যক্তি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসার পূর্বেই মারা গেছেন। ময়না তদন্তের পর জানা যাবে মৃত্যুর কারন। সংঘর্ষে আহত অপরাপর ব্যক্তিরা চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
পাইলগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান শাহান আহমদ বলেন, আমাদের ইউনিয়নে সংঘর্ষের ঘটনা শুনে ঘটনাস্থলে এসে জানতে পারলাম তুচ্ছ বিষয় নিয়ে পাখি করের লোকজনের সঙ্গে সংঘর্ষে নুরুল হক নিহত হয়েছেন।
ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী জগন্নাথপুর থানার এসআই সাইফুল আলম বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে ঘটনাস্থল থেকে ৩ জনকে আটক করেছি। এখনো অভিযান চলছে।
জগন্নাথপুর থানার ওসি (তদন্ত) আশরাফুল ইসলাম বলেন, গরুর ধান খাওয়াকে কেন্দ্রে করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে নুরুল হক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুুতি চলছে।