গার্মেন্টস কর্মীর মৃত্যু, তাহিরপুরে আত্মীয়-স্বজনের বাড়ি লকডাউন

এম.এ রাজ্জাক, তাহিরপুর
তাহিরপুরে জ¦র সর্দি কাশিতে মৃত ব্যাক্তির আত্মীয় ১২ পরিবারের বাড়ির সামনে লাল পতাকা টানিয়ে লকডাইন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ ওই পরিবারগুলোকে লকডাউনে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা মৃত ব্যাক্তির আত্মীয় স্বজনের বাড়ীতে গিয়ে এই ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্খ ছড়িয়ে পড়েছে। ।
পরিবারের সদস্যরা জানান, সপ্তাহখানেক ধরে ওই তরুণ জ্বর, সর্দি, কাশিতে ভুগছিল। বুধবার সন্ধ্যা ৭ টায় ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যু হয় তার। বৃহস্পতিবার সন্ধায় তার মরদেহ গাজীপুর থেকে গ্রামে নিয়ে আসা হয় এবং ওখানেই দাফন করা হয়।
সংবাদ পেয়ে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে স্বাস্থ্যকর্মী ও পুলিশ ওই এলাকায় গিয়ে তার আত্মীয় স্বজনের বাড়িতে লাল পতাকা টানিয়ে পরিবারগুলোকে লকডাউন করে দেন।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ জানান, জ¦র, সর্দি ও কাশি নিয়ে ঢাকায় মারা যাওয়া ওই তরুণকে কাউকে না জানিয়ে তাহিরপুরের গ্রামের বাড়ি এনে দাফন করা হয়েছে। এজন্য ওই তরুণের সকল আত্মীয় স্বজনের বাড়ি ১৪ দিন লকডাউনে রাখার নির্ধেশ দেওয়া হয়েছে।