গ্যাসের জন্য গাড়ির দীর্ঘ লাইন, ভোগান্তি

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জ পৌর শহরে দুইটি গ্যাস পাম্প রয়েছে। একটি ওয়েজখালির বলাকা সিএনজি ফিলিং স্টেশন, অন্যটি মল্লিকপুরের সিনথিয়া ফিলিং স্টেশন। এরমধ্যে বলাকা সিএনজি ফিলিং স্টেশনে শনিবার দিবাগত রাত থেকে সার্ভিসিং কাজ চলছে, বন্ধ রয়েছে গ্যাস সরবরাহ। গ্যাস পাম্প চালু করতে আরও দুই দিন লাগবে বলে জানিয়েছে কর্তৃৃপক্ষ। এতে সিনথিয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে তৈরি হয়েছে যানবাহনের দীর্ঘ লাইন। একটি গ্যাস স্টেশনে অত্যাধিক চাপ পড়ায় দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় থাকা ভাড়ায় চালিত গাড়ি ও পরিবহন ব্যবসায়ীদের আয় কমে গেছে। যাত্রীদের ভোগান্তি বেড়েছে।
রবিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওয়েজখালি এলাকায় বলাকা সিএনজি ফিলিং স্টেশনের কম্প্রেসার সার্ভিসিং কাজ চলছে। অন্যদিকে আব্দুর জহুর সেতু থেকে সিনথিয়া সিএনজি ফিলিং স্টেশন এলাকা জুড়ে যানবাহনের দীর্ঘ লাইন। গ্যাসের জন্য পাম্পে এসে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষার প্রহর গুনছেন চালকরা।
বিরামপুর এলাকার সিএনজি চালক নুরুল আমিন বলেন, রাত ৪ টা থেকে গাড়ি নিয়ে বসে আছি গ্যাস নেওয়ার জন্য এখনও গ্যাস পাইনি। গাড়ির এত লম্বা লাইন থাকায় গ্যাস পেতে দেরি হচ্ছে। সারাদিন গ্যাস নিতে এসে কাটিয়ে দিলাম। কখন গ্যাস পাব জানি না, দিন শেষ হয়তো খালি হাতে ফিরতে হবে।
ওয়েজখালি বলাকা সিএনজি ফিলিং স্টেশনের ম্যানেজার শামিম আহমেদ বললেন, আমাদের গ্যাস পাম্পের সার্ভিসিং কাজ চলছে। দুই দিন সময় লাগবে তারপর আগের মতো চালু হয়ে যাবে। আমাদের পাম্প চালু না হওয়ার আগ পর্যন্ত চালকদের ভোগান্তি কিছুটা থাকবে।