গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি মারাত্মক সংকট

হোসেন তওফিক চৌধুরী
দেশে বিরাজিত অর্থনৈতিক অবস্থার প্রেক্ষিতে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। প্রস্তাবনা অনুযায়ী গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি হলে বাড়ি ভাড়া, পরিবহন ব্যয়, গ্যাস নির্ভর শিল্প, বিদ্যুৎ ব্যয় প্রভৃতি অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে যাবে। এতে নি¤œ আয় ও মধ্যবিত্ত সমাজ আর্থিক সমস্যায় হিমসিম ও নাকানি-চুবানি খেতে বাধ্য হবে। এমনিতেই সকল নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের মূল্য অস্বাভাবিক এবং আকাশচুম্বি। এই অবস্থায় যদি গ্যাসের মূল্য বাড়ে তাহলে এই বৃদ্ধি হবে এক অশনি সংকেত।
শিল্প কারখানা ও গৃহস্থালী গ্যাসের মূল্য শতকরা একশ থেকে দুইশত ভাগ বৃদ্ধির প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। গ্যাস কোম্পানী এই প্রস্তাব দিয়েছে। গত মঙ্গলবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারে টিসিবি মিলনায়তনে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির ব্যাপারে অনুষ্ঠিত গণশুনানির সময় এই প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়। শুনানিতে এক চুলার জন্য ৭৫০ টাকার স্থলে ১৩৫০ টাকা এবং দুই চুলার ৮০০ টাকার স্থলে ১৪৪০ টাকার মূল্য প্রস্তাব করা হয়। এই শুনানিতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ, ব্যবসায়ী, সুশীল সমাজ ও রাজনৈতিক সংগঠনের প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। তারা সকলে এই অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির তীব্র প্রতিবাদ ও ক্ষোভ জানান। শুনানি শেষ হয়নি, অব্যাহত আছে। শুনানি শেষ হলেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষিত হবে। গ্যাসের মূল্য বাড়ানো হবে কি না এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের আগে শুধু বলা যায় গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাবনা মরার উপর খাড়ার ঘাঁ’র নামান্তর। এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে এই মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব নি¤œ আয় ও মধ্যবিত্তের জীবন যাত্রায় নিয়ে আসবে এক অর্থনৈতিক দুর্দশা। এতে সৃষ্টি হবে জনদুর্ভোগ। যার পরিণতিতে দেখা দেবে এক প্রতিকার বিহীন বিড়ম্বনা। গ্যাস আমাদের দেশীয় সম্পদ। এই সম্পদের উপর জনগণের অধিকার চিরন্তন ও চিরায়ত। কিন্তু অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব দিয়ে মানুষকে দেশীয় সম্পদ ভোগ করা থেকে বিরত রাখার পায়তারা শুরু হয়েছে। কর্তৃপক্ষ এই মূল্য বৃদ্ধির আগে মূল্য বৃদ্ধি হলে কি কি প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হবে এবং কোন কোন পণ্যের মূল্য বাড়বে এবং শ্রমিক কর্মচারী অসন্তোষ দেখা দেবে এটা ভেবে দেখেননি। উল্লেখ্য যে, সিলিন্ডার ও এলপি গ্যাসের ব্যবসাকে উৎসাহিত করার জন্য এই পায়তারা কি না এটা সর্বাগ্রে ভেবে দেখা দরকার। এমনিতেই দেশের অর্থনীতিতে মন্দাভাব বিরাজ করছে। ব্যাংক ঋণের সুদের হার, শিল্প ব্যয় ও শ্রমিকদের মজুরি বাড়ানো নিয়ে এমনিতেই চাপ অব্যাহত আছে। এই অবস্থায় গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি হলে ব্যবসা বাধাগ্রস্ত হবে এবং ব্যবসাতে ধস নামবে। অবস্থার প্রেক্ষিতে গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রস্তাব কোন অবস্থায় গ্রহণযোগ্য নয়, গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। এটা দেশে মারাত্মক বিক্ষোভের জন্ম দেবে এবং বিভিন্ন ভাবে মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করবে। জনমতের সঙ্গে এই প্রস্তাবনার কোন সঙ্গতি নেই। সেজন্য অবিলম্বে এই মূল্য বৃদ্ধির পায়তারা বন্ধ করা অত্যন্ত প্রয়োজন।
লেখক : সিনিয়র আইনজীবী ও কলামিষ্ট