গ্রাম আদালত বিষয়ক মতবিনিময় সভা

স্টাফ রিপোর্টার
গ্রামীণ এলাকার নারী, দরিদ্র ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে গ্রাম আদালত সম্পর্কে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে ‘গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক একটি মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সোমবার সকালে সুনামগঞ্জ সার্কিট হাউজ সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্প ও জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের আয়োজনে মতবিনিময় সভায় বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রায় ৫০ জন প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন।
জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেনের সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ প্রকল্পের জেলা ফ্যাসিলিটেটর সৈয়দ নজরুল ইসলামের সঞ্চালনায় অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ সদর সার্কেলের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মো. মাহবুবুর রহমান ও ইউএনডিপির কমিউনিকেশনস ও আউটরিচ স্পেশালিস্ট অর্পণা ঘোষ।
গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মোহনা টেলিভিশনের প্রতিনিধি কুলেন্দু শেখর দাস, দৈনিক আমাদেরসময়ের জেলা প্রতিনিধি বিন্দু তালুকদার, দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশের জেলা প্রতিনিধি আল হেলাল, সময় টিভির জেলা প্রতিনিধি হিমাদ্রী শেখর ভদ্র মিটু, মাছরাঙা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি এমরানুল হক চৌধুরী, দৈনিক যুগান্তরের দিরাই উপজেলা প্রতিনিধি জিয়াউর রহমান লিটন, দৈনিক ভোরের কাগজের তাহিরপুর উপজেলা প্রতিনিধি সাজ্জাদ হোসেন, দৈনিক যুগান্তরের জামালগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি হাবিবুর রহমান প্রমুখ।
সভায় জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে জানানো হয়, ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্প শুর হয়। এই প্রকল্প সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর, তাহিরপুর ও জগন্নাথপুর উপজেলার ২০টি ইউনিয়নে বাস্তবায়িত হচ্ছে। ২০টি ইউনিয়নে ২০১৭ সালের জুলাই থেকে গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মোট ৩৯৯টি মামলা দায়ের হয়েছে, এর মধ্যে ৩৩৬ টি মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে এবং ক্ষতিপূরণ বাবদ ১২ লাখ ৬০ হাজার টাকা ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিগণকে আদায় করে দেয়া সম্ভব হয়েছে।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেন বলেন, ‘গ্রামে অনেক ছোট খাটো অপরাধ সংঘটন হলেও সাধারণ মানুষ তার প্রতিকার চাইতে থানা বা জেলা আদালতে আসেন যাতে অনেক সময় ও অর্থের অপচয় হয়। গ্রাম আদালতের সেবা সম্পর্কে গণমাধ্যম বিভিন্ন সংবাদ প্রচার করে সাধারণ মানুষের মাঝে জনসচেতনতা বাড়াতে ব্যাপক কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারেন।’