ঘৃণার খামার

কুমার সৌরভ
ঘৃণার চাষে লাভের পাহাড়
যেমন পপি চাষে
যেমন মারণাস্ত্রে
যেমন যুদ্ধ দাঙ্গায়।

লাভের গুড়ে পিঁপড়ের ভিড় হবেই তো
পিঁপড়া গুড় খেয়ে শক্তিমান হয়ে কামড়ায়ই তো
আমাদের, তোমাদের, তাহাদের।
এমন এক ঘৃণার খামার ক্রাইস্টচার্চেও আছে
ব্রেন্টন সেখানে বন্দুক দিয়ে চাষ করে
ঘৃণা রাশি রাশি।

ঘৃণার নেই বিশেষ মানচিত্র
ঘৃণার নেই বিশেষ গোষ্ঠী,
এখানে জলজ প্রকৃতির আনুকূল্য লাগে না।
পাহাড় বরফ উষ্ণ মরুপ্রান্তর অথবা সুজলা মাটি
সব কীছুই এখন ঘৃণার খামার।

ঘৃণার সব খামারের
বেশ কয়েক জন বড় মালিক আছেন
তারা কেউ থাকেন ওয়াশিংটনে
কেউ মস্কোয় অথবা বেইজিংয়ে
তেলআবিবে তাদের বিশ্রামাগার।

তারা বীজ দেন সার দেন
আর দেন মজুর
মজুরদের কেউ একজন ব্রেন্টন
ব্রেন্টনের মাথায় সিরিঞ্জ দিয়ে
ঢোকানো হয়েছে ঘৃণা আর বিদ্বেষ
মানবিক সৃজনশীলতা ভুলে সে
প্রার্থনারত কাতারে চালায় নির্বিচার গণহত্যা

লাভ-ক্ষতির গরল অংকের ফলাফল
এই মৃত্যুর পৃথিবী।

কোথায় আপনি মাস্টারমশাই
যিনি জানেন এমন অংক পালটে দিয়ে
সমানুপাতের জ্যামিতিক সূত্র বানাতে ?
১৭.০৩.২০১৯