চাঁদাবাজির প্রতিবাদে তাহিরপুরে নৌ ধর্মঘট

স্টাফ রিপোর্টার
যাদুকাটা ও রক্তি নদী দিয়ে চলাচলকারী মালবোঝাই নৌযান থেকে বিভিন্ন স্থানে চাঁদা আদায়ের প্রতিবাদে নৌ-পরিবহন ধর্মঘট শুরু করেছে নৌযান মালিক, শ্রমিক ও ব্যবসায়ীরা। এ পথে চলাচলকারী নৌকা মালিক শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের ব্যানারে এ নৌধর্মঘট আহবান করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে জেলার তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের যাদুকাটা নদীর সোহালা নতুন বাজার এলাকায় এ দাবিতে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, চাঁদা আদায় বন্ধে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ না করা পর্যন্ত যাদুকাটা ও রক্তি নদী দিয়ে অনির্দ্দিষ্টকালের জন্য মালবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে।
এ সময় বক্তব্য রাখেন যাদুকাটা নৌকা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক
মো. ছিদ্দিক মিয়া, নৌযান মালিক বাছির মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা আদুস ছাত্তার, নৌযান চালক জসিম উদ্দিন, লোড আনলোড শ্রমিক নাছির মিয়া, নৌযান শ্রমিক আব্দুল আলী প্রমুখ।
স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, যাদুকাটা নদীর তাহিরপুর উপজেলার ঘাগড়া, রক্তি নদীর পাতারি ও নোয়াহাট স্থানে এবং রক্তি নদীর বিশম্ভরপুর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের রঙারচর এলাকায় জোর করে মালবাহী নৌযান থেকে চাঁদা আদায় করা হয়। কেউ প্রতিবাদ করলে মারধোর করে চাঁদা আদায়কারী সংঘবদ্ধ চক্র। প্রতিটি স্থানে একটি নৌযান থেকে দুই হাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করা হয়।
চাঁদা আদায় বন্ধে যাদুকাটা নৌকা মালিক সমিতি গত ১২ ডিসেম্বর স্থানীয় সাংসদ, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে লিখিত আবেদন করেছিলেন।
যাদুকাটা নৌকা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিক মিয়া বলেন, নৌপথে অতিরিক্ত চাঁদার কারণে ব্যবসায়ীরা এ এলাকা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তাই বাধ্য হয়ে আমরা এ নৌ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছি।