চার ইউনিটে সভাপতি-সম্পাদক হতে সক্রিয় ৩০ নেতা

বিশেষ প্রতিনিধি
রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ সুনামগঞ্জ জেলার তিন উপজেলা ও এক পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হয়েছে। ২৫ মে তাহিরপুর, ২৬ মে দোয়ারাবাজার এবং ২৭ মে ছাতক উপজেলা ও পৌরসভার সম্মেলন হবে। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ এই চার ইউনিটের সম্মেলনের সফল করার জন্য মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জেলা নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন। চার ইউনিটে সভাপতি সম্পাদক হতে আগ্রহী ৩০ জন নেতা জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে দলীয় পদ পেতে নানাভাবে তদবিরও শুরু করেছেন।
সুনামগঞ্জের শিল্প সমৃদ্ধ উপজেলা ছাতক। এই উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিবদমান দুই গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্ব সংঘাত চলছে দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে। দ্বন্দ্বের কারণে স্থানীয় নির্বাচন থেকে জাতীয় নির্বাচন দলীয় প্রতীকের বিরোধীতার ট্রাডিশনও আছে এই উপজেলার আওয়ামী লীগের বিবদমান দুই গ্রুপের। ছাতকের দ্বন্দ্ব সংঘাতের জেরে পাশের দোয়ারাবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগও ক্ষতবিক্ষত হয়েছে।
২১ বছর আগে (২০০০ সালের ৪ অক্টোবর) দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে দুইপক্ষকে ডেকে নিয়ে ছাতক উপজেলা, পৌরসভা এবং দোয়ারাবাজার উপজেলায় আহ্বায়ক কমিটি করে দিয়ে দুইপক্ষকে ঐক্যবদ্ধভাবে দলকে শক্তিশালী করার নির্দেশ দিলেও দলের অনৈক্য দূর হয় নি কখনোই।
ছাতক উপজেলা কমিটির আহ্বায়ক ডা. হারিছ আলী ও যুগ্ম আহ্বায়ক লুৎফুর রহমান সুরকুম জীবিত নেই। প্রয়াত এই দুই নেতার জীবদ্দশায়ই ছাতক ও দোয়ারাবাজার আওয়ামী লীগের একাংশ স্থানীয় সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক এবং অপরাংশ ছাতক পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী ও তার ভাই শামীম আহমদ চৌধুরী’র নেতৃত্বে পরিচালিত হয়েছে। কোন্দলের জেরে সংঘাত হয়েছে বহুবার।
ডা. হারিছ আলী ও লুৎফুর রহমান সুরকুমের মৃত্যুর পর বিবদমান দুই গ্রুপ আলাদা আলাদা কমিটি করে দলের কার্যক্রম পরিচালনা করেছে। সর্বশেষ দায়িত্বে থাকা দুই গ্রুপের দুই আহ্বায়ক ছানাউর রহমান ছানা ও আবরু মিয়া তালুকদারও জীবিত নেই।
এই অবস্থায় কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল নেতৃত্ব আগামী ২৭ মে ছাতক উপজেলা ও ছাতক পৌরসভার সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করে সম্মেলন সফল করার জন্য জেলা নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন। দীর্ঘদিন পর সম্মেলনের তারিখ ঘোষণায় দুই উপজেলা ও পৌরসভার নেতা কর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। ছাতক উপজেলায় সভাপতি হিসেবে যাদের নাম আলোচনায় রয়েছে, এরা হলেন ছাতক পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াহিদ মজনু, ছাতক পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী, ছাতক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান এবং দলীয় নেতা সৈয়দ আহমদ। সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দলীয় নেতা আওলাদ আলী রেজা, আজমল হোসেন সজল, আবু সাদাত লাহীন আলোচনায়।
ছাতক পৌরসভায় সভাপতি হিসাবে দলের নেতা তাপস চৌধুরী ও শাহাব উদ্দিন এবং সম্পাদক হিসাবে আনিসুর রহমান চৌধুরী সুমন ও বিকাশ সাহা’র নাম আলোচনায় আছে।
দোয়ারাবাজার উপজেলায় সভাপতি হিসেবে দলীয় নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীক, ফরিদ আহমেদ তারেক ও শামীমুল ইসলাম শামীম এবং সম্পাদক হিসেবে আব্দুল খালেক, দেওয়ান আল তানভির আশরাফি চৌধুরী বাবু, আমিরুল হক, অ্যাড. আব্দুল আজাদ রুমান ও অ্যাড. ছায়াদুর রহমানের নাম আলোচনায় আছে।
জেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক শামীম চৌধুরী ছাতক উপজেলা বা পৌরসভায় তিনি এবং তার ভাই (পৌরসভা মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী) কোন পদ পেতে আগ্রহী নন জানিয়ে বললেন, দলের নেতা কর্মীরা উপজেলায় ও পৌরসভায় যোগ্য নেতৃত্ব বাছাই করবেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি, ছাতক—দোয়ারাবাজারের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক বললেন, ছাতক ও দোয়ারাবাজারের ২২ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় সংগঠনকে গোছানোর কাজ চলছে। ২০৭ টি ওয়ার্ডে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি এবং ইউনিয়নগুলোয় সম্মেলন করে কমিটি করা হচ্ছে। বুধবার হয়েছে জাউয়াবাজার ইউনিয়ন সম্মেলন। কয়েকদিনের মধ্যে ইউনিয়ন কমিটি গঠনের কাজ শেষ হবে। ছাতক—দোয়ারায় আওয়ামী লীগের সম্মেলন বর্ণাঢ্য ও উৎসবমুখর হবে। সম্মেলনের মাধ্যমে যোগ্য নেতৃত্ব বেরিয়ে আসবে।
এদিকে, জেলার তাহিরপুর উপজেলায় প্রায় আট বছর পর সম্মেলন হবে ২৫ মে। সম্মেলনকে ঘিরে ওয়ার্ড ও ইউনিয়নের নেতা কর্মীরা সক্রিয় হয়ে ওঠেছেন। নেতৃত্ব পেতেও দৌঁড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে আগ্রহীদের।
সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি আবুল হোসেন খান, দলীয় নেতা নিজাম উদ্দিন (মোদেরগাঁও), মোতাহের হোসেন আখঞ্জি ও আলী মতুর্জা এবং সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক অমল কর, দলীয় নেতা নিজাম উদ্দিন (সোহালা), মঞ্জুর খন্দোকার, আলমগীর খোকন, আমিনুল ইসলাম ও হাফিজ উদ্দিনের নাম শোনা যাচ্ছে।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন বললেন, কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সুনামগঞ্জের একমাত্র ফসল বোরো ধান কাটার দিনগুলোতে ধর্মপাশা, সদর, শান্তিগঞ্জ ও জগন্নাথপুরের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারিত হওয়ায় ওই উপজেলাগুলোর সম্মেলনের তারিখ পেছানো হয়েছে। আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২৫ মে তাহিরপুর, ২৬ মে দোয়ারা এবং ২৭ মে ছাতকের সম্মেলন হবে। অন্য উপজেলায় জুনের প্রথম সপ্তাহে হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি নুরুল হুদা মুকুট বললেন, কেন্দ্রীয় দায়িত্বশীল নেতাদের নির্দেশনা অনুযায়ী ২৫ মে থেকে উপজেলায় উপজেলায় সম্মেলন হবে। পরে হবে জেলা সম্মেলন।