ছদ্মবেশ

কুমার সৌরভ

তাকে আগে প্রেমিক মনে হতো
চাঁদের কিরণ মাখা সাদা বকের মতো
যেন হেঁটে যাচ্ছে সুবর্ণ সড়ক ধরে
কোন এক মনোহর সরোবরে
তার চোখে খেলা করে এক জোড়া শাপলা
টলটল জলে তৈরি হয় রূপ নগরের মেলা
সে দাঁড়িয়ে থাকলে পাখিরা থামায় উড়ে চলা
দেখে সুঠাম শরীরে প্রজাপতি রঙের খেলা
কমলার মিষ্টি রসে টইটম্বুর কথা-জাদুর টানে
মায়াজালে বেঁধে রাখত সম্মোহনে

তার এমন ছদ্ম সুবেশ খসে পড়ে অবশেষে
কাঁচের চুড়ির মত ভেঙ্গে গড়াগড়ি যায়।
সেই দিন তিনি প্রেমের মূর্তি হয়ে
যেভাবে গরল ঢাললেন শান্ত পুকুরে
এবং মুখ দিয়ে অশ্রাব্য কথার তুবড়ি ছুটালেন
তাতে অনেকেই বিবমিশু হয়ে উঠেছিলেন
কিন্তু তিনি নির্বিকার গর্জনে মেলাঙ্গনকে
জনশূন্য করে একা হয়ে গেলেন বিশাল ময়দানে
অট্টহাসিসহ একদলা থু থু ছুড়ে দিলেন আকাশে
আকাশ কোন কিছুই গ্রহণ করেন না
ছিটানো থু থু আশ্রয় নেয় তারই মাথায়।

এখনও তিনি মাটির পিদিমে সলতে জ্বেলে
দেখান আলোর পূজারী
কিন্তু সকলেই জেনে গেছে এ ভ-ামী
লোকালয় পুড়ানোর সুনিপুণ আয়োজন।
০৫.০৪.২০১৯