ছাতকে কালী মন্দিরসহ নিরীহ ৪ পরিবারের উপর প্রভাবশালীদের হামলা, আহত ১২

স্টাফ রিপোর্টার

সুনামগঞ্জের ছাতকে ফেইসবুকে স্ট্যটাস দেওয়াকে কেন্দ্র করে এক মুক্তিযোদ্ধার পরিবারসহ নিরীহ ৪ পরিবার এবং কালী মন্দিরে হামলা করেছে প্রভাবশালী একটি পক্ষ। রোববার রাত সাড়ে ৮ টায় ছাতকের তাতীকোণা এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় সনাতন ধর্মাবলম্বী নিরীহ ৪ পরিবারের ঘরে ঢুকে মহিলাদের উপরও আক্রমণ চালায় প্রভাবশালীরা। ঘটনার পর ছাতকের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. গোলাম কবীর, সহকারী পুলিশ সুপার বিল্লাল হোসেন ও থানার ওসি গোলাম মোস্তফা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাতক পৌর এলাকার তাতীকোণা এলাকার রবি দাসের ছেলে তাপস দাস ও শাহেদ আলী সরকারের ছেলে আরিফ হোসেন ঘনিষ্ট বন্ধু হিসাবে পরিচিত। সম্প্রতি এই দুজনের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। শনিবার তাপস দাস তার নিজের ফেইসবুক আইডিতে একটি গরুর ছবি দিয়ে পোস্ট দিয়ে লিখে,‘গরু’র কাছে ঘাষের গল্প করতে হয়, ফুলের গল্প তার নিকট বেমানান’। আরিফ হোসেন ও তাঁর স্বজনরা এটি আরিফ হোসেনকে উদ্দেশ্য করে লিখা হয়েছে দাবি করে উত্তেজিত হয় তাপসের উপর। রাত ১০ টায় এই বিষয়টি আপোসে নিস্পত্তি হবার কথা ছিল। এরমধ্যেই রাত সাড়ে ৮ টায় আরিফ হোসেনের পক্ষের ২৫-৩০ জন একসঙ্গে দা. রামদা, লাটিসোটা ও ইটপাটকেল নিয়ে রবি দাসের বাড়িতে, ছাতক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার স্বরাজ কুমার দাসের বাড়িতে ও তার আত্মীয় প্রণব দাস মিঠু ও পপলু দাসের বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় এই মহল্লার কালী মন্দিরেও তা-ব চালায় হামলাকারীরা। আধাঘণ্টারও বেশি সময় তা-বের ঘটনায় মহিলাসহ ১২ জন আহত হন। গুরুতর আহত তাপস দাস (২৩) ও পপলু দাস’এর (২৫) অবস্থা আশংকাজনক।

মুক্তিযোদ্ধা স্বরাজ কুমার দাস জানান, অতর্কিত হামলা চালায় ২৫-৩০ জনের একটি দল। তারা কালী মন্দিরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে। ৪ টি বাড়িতে তা-ব চালায়। মহিলারা জোড় হাতে তাদেরকে অনুরোধ জানিয়েও কোন লাভ হয়নি। তারা মহিলাদের উপরও আক্রমণ করে।

অভিযোগ প্রসঙ্গে আরিফ হোসেন জানান, তা-বের কোন ঘটনা ঘটেনি। মন্দির ভাংচুর হয়নি। ফেইসবুকে কটাক্ষ করে স্ট্যাটাস দেওয়ায় তাদের বাড়িতে গিয়ে জিজ্ঞেস করলে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এখন মামলা করার জন্য এসব কথা বলা হচ্ছে।

ছাতক থানার ওসি গোলাম মোস্তফা জানান, ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়াকে কেন্দ্র করে তাতীকোণার কিছু নিরীহ পরিবারের উপর প্রভাবশালীরা হামলা করেছে। কালীমন্দিরও তছনছ হয়েছে। এ ঘটনায় ৮-১০ জন আহত হয়েছেন। এখনো (রাত ১০ টা) মামলা হয়নি।