ছাতকে গীতা বিরলা মন্দির, কাত্যায়নী ও আগ্নেয়গিরির আদলে পূজামণ্ডপ

বিজয় রায়, ছাতক
ছাতকে প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও পূজা মন্ডপগুলো সাজানো হয়েছে পৌরাণিক কিছু দেব-দেবীর মন্দির ও আগ্নেয়গিরির আদলে মণ্ডপ নির্মাণ করা হয়েছে। পূজা মন্ডপগুলোতে ভিন্ন মাত্রা ও নতুনত্ব বিষয় যোগ হওয়ায় দর্শনার্থীদের নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছে। এবারের শারদীয় উৎসব পালনে বিভিন্ন উদযাপন কমিটি তাদের ভিন্ন চিন্তা-তেনা নিয়ে পূজা মণ্ডপগুলো সাজিয়েছেন। ভারতরে কুরুক্ষেত্র এলাকার বিখ্যাত গীতা বিরলা মন্দির, জলন্ত আগ্নেয়গিরির মখে বিশ্ব ব্রহ্মান্ড, কাত্যায়নি মন্দির ও বাংলাদেশ রেলওয়েসহ বিভিন্ন দেব-দেবীর মন্দিরের আদলে সজ্জ্বিত করা হয়েছে এ বছরের পূজা ম-পগুলো।
শুক্রবার মহা ষষ্ঠী পূজার মধ্যদিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বিদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শুরু হয়েছে। এ বছর উপজেলার ৩৬টি পূজামন্ডপে উৎসব মুখর পরিবেশ ও ধর্মীয় ভাব গাম্ভির্যের মধ্য দিয়ে চলছে শারদীয় দুর্গোৎসব। ঢাকা, ঢোল, শঙ্খ ও উলধ্বনিতে মুখরিত এখন প্রতিটি পূজা মন্ডপ। উৎসব উপলক্ষে একমাস ধরে প্রতিটি পূজা মন্ডপে চলছে প্রতিযোগিতামূলক সাজ-সজ্জা ও মন্ডপ সাজানোর কাজ। বিগত কয়েক বছর ধরে এখানের পূজা মন্ডপগুলোতে আনা হয়েছে নতুনত্ব।
এ বছরও ব্যতিক্রমভাবে সাজানো হয়েছে বেশ কয়েকটি মন্ডপ। পাশাপাশি আকর্ষণীয় ও নজরকাড়া ফটক, আলোকসজ্জ্বার মাধ্যমে মন্ডপগুলোকে উপস্থাপন করা হয়েছে আরো অপরূপভাবে। সেই ধারাবাহিকতায় এ বছর শহরের কালীবাড়ি সার্বজর্নীন পূজা মণ্ডপ সজ্জিত করা হয়েছে বিখ্যাত গীতা বিরলা মন্দির। নিপুন শিল্পীর হাতের ছোঁয়ায় ও অপরূপ আলোক সজ্জায় সজ্জিত করে অনেকটা প্রানবন্দ করে তোলা হয়েছে গীতা বিরলা মন্দিরের আদলে তৈরী কার কালীবাড়ী পূজা পকে। প্রতিদিন পূজামন্ডপ এক নজর দেখার জন্য দুর দূরান্ত থেকে আসছেন দর্শনার্থীরা। শহরের মন্ডলীভোগ চৈতন্য সংঘর পূজা মন্ডপ সাজানো হয়েছে আগ্নেয়গিরির আদলে। এ পূজা মন্ডপে নতুনত্ব যোগ হওয়ায় মন্ডপে দর্শনার্থীদের ভিড় লেগেই আছে। গত বছরের ন্যায় এ বছরও হাসপাতাল রোডের ত্রি-নয়নী পূজা মন্ডপ তৈরী করা হয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ের আদলে। এ বছরও নজরকাড়া পরিকল্পনায় প্রস্তুত করা হয়েছে ত্রি-নয়নী পূজা মন্ডপ। শহরের তাঁতিকোনা পূজা ম-প তৈরী করা হয়েছে কাত্যায়নি মন্দিরের আদলে। দীর্ঘ সু-সজ্জিত পথ অতিক্রম করে মন্ডপে পৌঁছলেই নজরে আসবে কাত্যায়নি মন্দির। মহামায়া যুবসংঘের রেল কলোনীর পূজা মণ্ডপ সব সময়ই ভিন্ন সাজে তৈরী করা হয়।
কালীবাড়ী পূজা কমিটির সভাপতি অরুন দাস ও সাধারণ সম্পাদক বিজয় রায় জানান, ছাতকে সব সময়ই পূজা মন্ডপগুলোকে ভিন্ন আঙ্গিকে সাজানোর চেষ্টা করা হয়। ভিন্ন ভিন্ন কমিটি তাদের নিজস্ব চিন্তা-চেতানা থেকে মণ্ডপ তৈরী করে থাকেন। এ বছরও এর ব্যতিক্রম হয়নি। পূজা মন্ডপ গুলোর মধ্যে সবচেয়ে প্রাচীনতম কালীবাড়ি পূজাম-পে এ বছর ৯৩ তম সার্বজনীন দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে।