ছাতকে বন্দুকযুদ্ধ- ৫ সহোদরের ৬ আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স বাতিল

স্টাফ রিপোর্টার
ছাতকে নৌপথে চাঁদাবাজি ও ফেসবুকে কটুক্তি’র জের ধরে ছাতক পৌরসভার মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম চৌধুরী ও তার ভাই শামীম আহমদ চৌধুরী’র সমর্থকদের মধ্যে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ একই পরিবারের ৫ ভাইয়ের ৬ টি আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স বাতিল করেছেন। যাদের লাইসেন্স বাতিল হয়েছে, এঁরা সকলেই একই পরিবারের, ছাতক পৌরসভার মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম চৌধুরী ও শামীম আহমদ চৌধুরী’র ভাই, ছাতকের বাগবাড়ি’র আরজ মিয়া চৌধুরী ও মৃত নুরুন নেছা চৌধুরী’র ছেলে।
অস্ত্রের লাইসেন্স যাদের বাতিল হয়েছে, এঁরা হচ্ছেন- ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য, আওয়ামী লীগ নেতা শামীম আহমদ চৌধুরী, তার ভাই ছাতক লাইমস্টোন ইম্পোটার্স এ- সাপ্লায়ার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট আহমদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরী, তাদের ভাই মো. কামাল চৌধুরী, জামাল আহমেদ চৌধুরী ও শাহীন আহমেদ চৌধুরী।
বাতিলকৃত লাইসেসন্সগুলো হচ্ছে- শামীম আহমদ চৌধুরী’র একটি শর্টগান (লাইসেন্স নম্বর-১০৫/১৩ ছাতক, শর্টগান নম্বর ৮১৩৯ (এক্সটা ব্যারল) এবং রিভলবার (লাইসেন্স নম্বর ০০৫/২০১১ ছাতক, এনপিবি-রিভলভার নম্বর বি-৭৯৫৬১ মার্ক ৩২ বোর, ইংল্যা-ের তৈরী।
তাঁর ভাই শাহীন আহমেদ চৌধুরী’র একটি শর্টগান, লাইসেন্স নম্বর ১১৫/১৪, ছাতক, ডিবিবিএল বন্দুক নম্বর ৫৭৪। জামাল আহমেদ চৌধুরী’র একটি শর্টগান, লাইসেন্স নম্বর ১১৩/১৩ ছাতক, এসবিবিএল বন্দুক নম্বর ৮৪২৬১৭৫, পর্তুগালের তৈরী। মো. কামাল চৌধুরী’র একটি শর্টগান, লাইসেন্স নম্বর ১১১/১৩ ছাতক, শর্টগান নম্বর ৮১১২, এক্সট্রা ব্যারল, তুর্কির তৈরী। আহমদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরী’র একটি শর্টগান, লাইসেন্স নম্বর ১১০/১৩ ছাতক, শর্টগান নম্বর ৮১৪১, এক্সট্রা ব্যারল, তুর্কির তৈরি।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ শনিবার সন্ধ্যায় জানান, পুলিশ সুপার (জেলা বিশেষ শাখা) সুনামগঞ্জ’এর প্রতিবেদনের ভিত্তিতে জননিরাপত্তার স্বার্থে আগ্নেয়াস্ত্র লাইসেন্স প্রদান, নবায়ন ও ব্যবহার নীতিমালা ২০১৬’এর ২৫ ধারায় বর্ণিত আগ্নেয়াস্ত্র বহন বা ব্যবহার সংক্রান্ত নির্দেশাবলী প্রতিপালন না করায় (নীতিমালার ১৯’এর (চ) ধারা মোতাবেক) ইস্যুকৃত আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে।
এই সংক্রান্ত নোটিশ (নম্বর ০৫.৪৬. ৯০০০. ০১৬. ১১. ০০৯. ১৮-৭৪০) সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে শনিবার জারি করা হয়েছে বলে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
গত ১৪ এপ্রিল ছাতকে পৌর মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী ও তাঁর ভাই শামীম আহমদ চৌধুরী’র সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় ব্যাপক পরিমাণে আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহৃত হয়। দু’পক্ষের বন্দুকযুদ্ধে ১ জন নিহত এবং ৯ পুলিশসহ উভয়পক্ষের কমপক্ষে ৪০ জন আহত হয়েছিলেন। সংঘর্ষ ঠেকাতে পুলিশ ৫২ রাউন্ড টিয়ারগ্যাস এবং ১৬৩ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছুঁড়েছিল।
এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা, একটি পুলিশ এসল্ট মামলা ও একটি বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা হয়।
আওয়ামী লীগ নেতা শামীম আহমদ চৌধুরী ও আহমদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরী’র ফোনে এই বিষয়ে জানার জন্য একাধিকবার ফোন করলেও তারা রিসিভ না করায় বক্তব্য জানা যায়নি।
ছাতক পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম চৌধুরী জানালেন, তিনি এই বিষয়ে কিছুই জানেন না।