ছাতকে লাফার্জ হোলসিমের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ী-জনতার অবস্থান ধর্মঘট

ছাতক প্রতিনিধি
শিল্প আইন লংঘন করে অবৈধভাবে ক্রাশিং চুনাপাথর উৎপাদন ও খোলাবাজারে বিক্রির প্রতিবাদে ছাতকে অবস্থান ধর্মঘট পালন করেছে ব্যবসায়ী—শ্রমিক ঐক্য পরিষদ ও সর্বস্তরের জনগণ।
বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত শহরের লাফার্জ ফেরী ঘাটে অনুষ্ঠিত অবস্থান ধর্মঘটে কয়েক হাজার ব্যবসায়ী, শ্রমিক ও সাধারন মানুষ অংশ নেন। এসময় লাফার্জ ফেরী ঘাট এবং এর আশপাশের সুরমা নদীর উভয় তীরে অবস্থানরত নৌ—যানে লাফার্জের মালামাল লোডিং—আনলোডিং বন্ধ করে দেয়া হয়। সুরমা নদীর উত্তর পার লাফার্জ ঘাট থেকে সরিয়ে দেয়া হয় সকল নৌ—পরিবহন। প্রায় ১০ ঘন্টা অবস্থান ধর্মঘট চলাকালে সুরমা নদীর উভয় পারে কয়েকশ’ যাত্রী ও মালবাহী গাড়ি আটকা পড়ে দীর্ঘ যান জটের সৃষ্টি হয়।
অবস্থান ধর্মঘট চলাকালীন সময়ে ছাতক লাইমস্টোন ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লায়ার্স গ্রুপের প্রেসিডেন্ট, ব্যবসায়ী—শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহবায়ক আহমদ শাখাওয়াত সেলিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও ব্যবসায়ী নাজমুল হোসেন জুয়েলের পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, লাফার্জ হোলসিমের অবৈধকার্যক্রমে এখানের ব্যবসায়ীদের পিঠ দেয়ালে আটকে গেছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে ক্রাশিং চুনাপাথর বাজারজাত করা বন্ধ না করলে লাফার্জ হঠাও গণআন্দোলন গড়ে তুলে লাফার্জ হোলসিমকে বাধ্য করা হবে বলে বক্তারা হুঁশিয়ারী করেন। আন্দোলনের অংশ হিসেবে আগামী ২৩ অক্টোবর নৌ—পথ অবরোধ করার ঘোষণা দেন বক্তারা।
প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাবেক পৌর মেয়র আব্দুল ওয়াহিদ মজনু, ব্যবসায়ী সৈয়দ আহমদ, প্রাক্তন অধ্যক্ষ মঈন উদ্দিন আহমদ, প্রাক্তন অধ্যাপক হরিদাস রায়, ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাড. সুফি আলম সুহেল, দেওয়ান পীর আব্দুল খালিক রাজা, শামীমুল ইসলাম শামীম, সাইফুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির আলী বাদশা, পৌর কাউন্সিলর ইরাজ মিয়া, ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ফজলু মিয়া চৌধুরী, ব্যবসায়ী—শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সেক্রেটারী আবুল হাসান, লাইমস্টোন ইম্পোটার্স এন্ড সাপ্লায়ার্স গ্রুপের জেনারেল সেক্রেটারী অরুন দাস, ছাতক পাথর ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সেক্রেটারী সামছু মিয়া, ব্যবসায়ী আশিদ আলী, আব্দুল হাই আজাদ, আলী আমজদ, ইউপি সদস্য সাজ্জাদুর রহমান, ব্যবসায়ী কয়েছ আহমদ, বাবুল মিয়া মেম্বার. লায়েক মিয়া, মত্তর্ুজা তালুকদার, কালা মিয়া, নজরুল ইসলাম, মঈন উদ্দিন, মুক্তার হোসেন, নজরুল চৌধুরী, শ্রমিক নেতা তজম্মুল আলী, নজরুল হোসেন, আইনুল হক, বাবলু মিয়া, কালা মিয়া, ফারুক মিয়া প্রমুখ।
এসময় সাবেক পৌর কাউন্সিলর ধন মিয়া, মাসুক মিয়া, নওশাদ মিয়া, শফীক আলী মেম্বার সহ সর্বস্তরের ব্যবসায়ী, শ্রমিক, জনপ্রতিনিধি ও সাধারন মানুষ উপস্থিত ছিলেন।