জগন্নাথপুরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত দুইটি সড়কের যোগাযোগ বিছিন্ন

জগন্নাথপুর অফিস
গত কয়েকদিনের বৃষ্টিপাতে ও পাহাড়ি ঢলে জগন্নাথপুরের নিম্নাঞ্চলসহ উপজেলার বির্স্তীণ এলাকায় প্লাবিত হয়েছে। শনিবার থেকে উপজেলার দুইটি সড়কে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ৮টি আশ্রয় কেন্দ্রে খোলা হয়েছে।
এলাকাবাসী জানান, অব্যাহত বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের পাইলগাঁও, রমাপতিপুর, মশাজান, কাতিয়া, বড়ফেচি, চিলাউড়া, দাসনাগাঁও, পৌরএলাকার হবিবনগর উপজেলার বিভিন্ন নিম্নাঞ্চলের লোকজন পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন।
চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নের গোলাপাড়া গ্রামে বাড়িঘরে পানি ওঠে যাওয়ায় এই গ্রামের কয়েকটি পরিবারের লোকজন হাজী তুলারজান সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। এছাড়াও উপজেলার রানীগঞ্জ ও বড়ফেচি বাজারে পানি ওঠেছে।
এদিকে জগন্নাথপুরের শিবগঞ্জ-বেগমপুর সড়কের কাতিয়া নামক স্থান থেকে বড়ফেচির বাজার এলাকা পর্যন্ত পানি ওঠে সড়ক ভেঙে যাওযায় এবং রৌয়াইল-রানীগঞ্জ সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।
পাইলগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মখছিল মিয়া বলেন, অব্যাহত বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলে আমাদের ইউনিয়নের চার-পাঁচটি গ্রামের লোকজনের বাড়িঘরে পানি উঠেছে। উপজেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগের প্রধান সড়ক শিবগঞ্জ-বেগমপুর সড়কে পানিতে ভেঙে যাওয়ায় সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে গেছে। স্থানীয় কুশিয়ারা নদীর পানি বাড়ছে।
জগন্নাথপুর পৌরসভার কাউন্সিলর সোহেল আহমদ বলেন, পানি বেড়ে যাওয়ায় গতকাল হবিবনগর এলাকায় লোকজন পানি বন্দি হয়ে পড়েছেন। পানিতে তলিয়ে গেছে হবিবনগর এলাকার রাস্তা।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (চ.দা.) ও জগন্নাথপুরের এসিল্যান্ড ইয়াসির আরাফাত বলেন, জগন্নাথপুরের নি¤œাঞ্চলসহ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে পানি বেড়েছে। ইতিমধ্যে উপজেলার আটটি ইউনিয়নে আটটি আশ্রয় কেন্দ্রে খোলা হয়েছে। আমরা সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি।