জগন্নাথপুরে কিশোরীকে গণধর্ষণ, আটক ২

জগন্নাথপুর অফিস
বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে সিলেটের বিশ্বনাথের এক তরুণীকে জগন্নাথপুরে গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুুতি চলছে।
ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ বুধবার বিকেলে দ্ইু জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হল, জগন্নাথপুর পৌর এলাকার ইকড়ছই গ্রামের মিনিবাস চালক আইনুল হক ও বাসস্ট্যান্ড ম্যানেজার জগন্নাথপুরের কুমারখালী এলাকার জিতু মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকা একই গ্রামের বুরহান উদ্দিন।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, বিশ্বনাথ উপজেলার ফেনারগাঁও গ্রামের ওই মেয়ে মায়ের সাথে রাগ করে বাড়ি থেকে মঙ্গলবার দুপুরে বের হয়ে মিনিবাসে উঠে জগন্নাথপুর উপজেলা সদরে নামে। পরে রিকশা যোগে সুনামগঞ্জ বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় যায়। সেখানে দীর্ঘক্ষণ একটি দোকানের সামনে তাকে বসে থাকতে দেখে দোকান মালিক মেয়েটির বাড়ি কোথায় জানতে চাইলে মেয়েটি রাগ করে বাড়ি থেকে বের হয়ে এসেছে বলে জানায়। পরে দোকান মালিক মেয়েটির মা কে ফোন দিলে তিনি মেয়েটিকে গাড়িতে তুলে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়ার অনুরোধ করেন। এসময় দোকানে থাকা মিনিবাস চালক আইনুল হক মেয়েটিকে বিশ্বনাথের গাড়িতে তুলে দেয়ার কথা বলে নিয়ে যায়। মিনিবাস চালক মেয়েটিকে গাড়িতে তুলে না দিয়ে বাসষ্ট্যান্ডের ম্যানেজার বুরহান উদ্দিনের জগন্নাথপুর গ্রামের জিতু মিয়ার কলোনীর ভাড়া বাসায় নিয়ে সারা রাত জোরপূর্বক তাদের আরো দুই সহযোগীসহ চারজন মিলে ধর্ষণ করে। পরদিন বুধবার সকালে মেয়েটি জগন্নাথপুর থানায় এসে পুলিশকে বিষয়টি জানায়।
জগন্নাথপুর থানার উপ-পরির্দশক লুৎফুর রহমান জানান, মেয়েটির কথামতো অভিযান চালিয়ে দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনায় সম্পৃক্ত আরো দুইজন কে ধরতে আমরা অভিযান অব্যাহত রেখেছি। জগন্নাথপুর থানার ওসি (তদন্ত) নব গোপাল দাশ বলেন, মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা দায়েরের প্রস্তুুতি চলছে।