জগন্নাথপুরে দুর্যোগের আগাম ব্যবস্থা নিতে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদেরকে নির্দেশ

জগন্নাথপুর অফিস
জগন্নাথপুরে মৃত্যু ঝুঁকি নিয়ে কষ্টার্জিত ফসল তুলছেন কৃষকরা। প্রচন্ড ঝড়বৃষ্টি ,আফাল আর বজ্রপাতের ঝুঁকির মধ্য দিয়ে ফসল উত্তোলনের সংগ্রাম চলছে হাওরে। গত মঙ্গল ও বুধবার সকাল থেকে প্রচন্ড ঝড়বৃষ্টি ও বজ্রপাতের বিকট শব্দ শুনা গেলেও এসব উপেক্ষা করে কৃষকরা পাকা ধান কাটতে হাওরে গেছেন।
এদিক আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী আগামী সপ্তাহে কালবৈশাখী ঝড়, অতিবৃষ্টি ও বজ্রপাতের সম্ভাবনা থাকায় জগন্নাথপুর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে জগন্নাথপুরের মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ গত বুধবার ইউনিয়ন পর্যায়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা আহ্বান করে জনসচেতনা বৃদ্ধি ও আশ্রয়কেন্দ্রগুলো ব্যবহার উপযোগী করার পূর্ব প্রস্তুুতি নিতে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদেরকে নির্দেশনা দিয়েছেন।
কৃষকরা জানান, গত দুই বছর প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে ধান তুলতে পারেননি। এবার ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। পাকা ধান জমিতে দুলছে। এঅবস্থায় ঝড়বৃষ্টি ধান তুলতে বিঘœতার সৃষ্টি করছে। এসব উপেক্ষা করে বছরের আহার জোগাতে ফসলের মাঠে রয়েছে।
জগন্নাথপুর উপজেলার নলুয়ার হাওর পাড়ের দাসনোওয়াগাঁও গ্রামের কৃষক রবীন্দ্র দাস বলেন, জমিতে পাকা ধান রেখে ঝড়বৃষ্টি হলেও ঘরে থাকতে মন চায় ন্।া তাই ঝুঁকি নিয়েও ঝড়বৃষ্টির মধ্যে ধান কাটতে হয়েছে।
তিনি বলেন, ঝড়বৃষ্টিতে কৃষি শ্রমিকরা ধান কাটতে অতিরিক্ত মজুরী নিচ্ছেন। বুধবার তিনি আটশত টাকা মজুরিতে ছয়জন শ্রমিক লাগিয়ে নিজে সহযোগী থেকে এক বিঘা জমির ধান কেটেছেন।
হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের জগন্নাথপুর উপজেলা শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা নির্মল দাস বলেন, হাওরে কৃষি শ্রমিক সংকট থাকায় কৃষকরা পাকা ধান তুলতে বিলম্ব হচ্ছে। এছাড়াও ঝড়বৃষ্টি শুরু হওয়ায় কৃষকদের মধ্য আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। তাই ঝুঁকি নিয়ে কৃষকরা ধান তুলার কাজ করছেন।
তিনি বলেন, ধান উত্তোলনের ওপর কৃষকদের সারা বছরের জীবিকা ও পারিবারিক অন্যান্য ব্যয় নির্ভর করে। গত দুই বছর ফসল না পেয়ে কৃষকরা কষ্টে আছেন।
জগন্নাথপুরের ইউএনও মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ বলেন, দুর্যোগব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব অজয় কুমার চক্রবর্তীর স্বাক্ষরিত পত্রের আলোকে জগন্নাথপুর উপজেলার একটি পৌরসভা ও আটটি ইউনিয়নে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভার মাধ্যমে পূর্বপ্রস্তুুতি গ্রহণ করতে বুধবার সকল চেয়ারম্যানদেরকে বলা হয়েছে।