জগন্নাথপুরে নেতৃত্বে আসতে মরিয়া প্রবাসীরা

আলী আহমদ, জগনন্নাথপুর
জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। দলের পদ পদবী পেতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের তৎপরতা শুরু হয়েছে। দলের নেতৃত্বে আসতে চান লন্ডন প্রবাসিরাও। এরই মধ্যে কয়েকজন প্রবাসী সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণের পর পরই দেশে ফিরে মাঠে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন।
দলীয় নেতাকর্মীরা জানান, ২০১৪ সালে ২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন প্রায় আড়াই মাস পর ফেব্রুয়ারি মাসে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমনের যৌথ স্বাক্ষরে আকমল হোসেন কে সভাপতি এবং রেজাউল করিম রিজু কে সাধারণ সস্পাদক করে ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটির অনুমোদন দেন। এই কমিটিতে বেশ কয়েকজন লন্ডন প্রবাসি রয়েছেন।
গত ১৭ অক্টোবর সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ সুনামগঞ্জের ১১ উপজেলা ও ১টি পৌরসভার সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা দেন। আগামী ১ ডিসেম্বর জগন্নাথপুর উপজেলার সম্মেলন নির্ধারণ করা হয়। দীর্ঘ ৫ বছর পর অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনকে কেন্দ্র করে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। দলীয় কার্যালয়ে নিয়মিত আসা যাওয়া চলছে প্রার্থীদের পাশাপাশি নেতাকর্মীদের। পদ পদবী প্রত্যাশীরা দলের কর্মীদের খোঁজ খবর নিচ্ছেন। পাশাপাশি কমিটিতে স্থান পেতে তদবিরও শুরু হয়ে গেছে।
এদিকে সম্মেলনকে সামনে রেখে জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে চলছে উৎসবের আমেজ। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজ নিজ পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে প্রচার করছেন অনেকই।
এবার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে ৭ জন প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। এরমধ্যে প্রবাসী প্রার্থী রয়েছেন পাঁচ জন। তাঁরা হলেন, জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সহ সভাপতি আব্দুল মনাফ, সহসভাপতি পাটলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, আনহার মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ ও কলকলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাসিম।
সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী ৬ জন। এরমধ্যে লন্ডন প্রবাসি আছেন দুইজন। একজন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ আবুল হাসান। অপরজন হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক লুৎফুর রহমান।
এছাড়া অন্যান্য পদেও স্থান পেতে সম্মেলনেই আগেই অনেক প্রবাসীর দেশে ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গেছে।
সভাপতি পদে প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি পাটলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান যুক্তরাজ্য প্রবাসী সিরাজুল হক বলেন, প্রবাসী হলেও বেশিরভাগ সময় দেশেই থাকতে হয়। এলাকার মানুষের সঙ্গে নিবিড়ভাবে জড়িয়ে আছি। দল আমাকে মূল্যায়ন করলে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আর্দশ বাস্তবায়নে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি অবিচল থেকে আজীবন দলের জন্য কাজ করতে চাই।
সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান যুক্তরাজ্য প্রবাসী সৈয়দ আবুল হাসান বলেন, বঙ্গবন্ধুর আর্দশে উজ্জীবিত হয়ে সক্রিয়ভাবে ছাত্র রাজনীতি করেছি। এখানকার একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমি দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেছি। প্রবাসের চেয়ে দেশেই সময় কাটে বেশি। দলকে দিতে চাই, এজন্য প্রার্থী হবো সাধারণ সম্পাদক পদে।