জগন্নাথপুরে পিছাতে পারে সম্মেলন

আলী আহমদ, জগন্নাথপুর
জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মধ্যে ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে।
আগামী ১ ডিসেম্বর সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হলেও গতকাল পর্যন্ত জগন্নাথপুরের ইউনিয়ন ও পৌরসভার শেষ হয়নি ওয়ার্ডভিত্তিক কমিটি গঠন। তবে গত মঙ্গলবার উপজেলা আওয়ামী লীগের এক সভায় আগামী ৩ ডিসেম্বর থেকে জগন্নাথপুরের তিনটি ইউনিয়নের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করায় ১ ডিসেম্বরের সম্মেলন নিয়ে ধূ¤্রজাল সৃষ্টি হয়েছে।
দলীয় নেতাকর্মীরা জানান, ২০১৪ সালে ডিসেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন কয়েকমাস আগে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান ও
তৎসময়ের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল হুদা মুকুট আকমল হোসেনকে সভাপতি এবং রেজাউল করিম রিজুকে সাধারণ সম্পাদক করে ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করে দেন। দীর্ঘ ৫ বছর পর আগামী ১ ডিসেম্বর জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন করার তারিখ নির্ধারিত হয়।
সম্মেলনকে সামনে রেখে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা দেখা দেয়। পদ পদবি পেতে নিয়মিত দলীয় কার্যালয় আসা যাওয়ার ভিড় বাড়তে থাকে সম্ভাব্য প্রার্থীসহ দলীয় নেতাকর্মীদের। এরমধ্যে বেশ কয়েকজন প্রবাসি পদ পদবিতে স্থান পেতে যুক্তরাজ্য থেকে দেশে ফিরে নেতাকর্মীদের সঙ্গে প্রচার কাজ শুরুর পাশাপাশি চালিয়ে যাচ্ছেন জোর লবিং।
সম্মেলনকে সামনে রেখে প্রথম দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের ব্যাপক প্রস্তুুতি নিয়ে কাজ শুরু করে। যার ধারাবাহিকতায় গত ২৯ অক্টোবর উপজেলা আওয়ামী লীগ বর্ধিত সভায় মিলিত হয়। ওই সভায় একটি পৌরসভা ও উপজেলার আটটি ইউনিয়নের প্রত্যেক ওয়ার্ডের কমিটি গঠনের জন্য ১০দিনের সময়সীমা দেয়া হয়। গত ৮ নভেম্বর নিধারিত সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও এখনও শেষ হয়নি ওয়ার্ডগুলোর কমিটি। গত ১৩ নভেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, যেসব ওয়ার্ডের কমিটি গঠন হয়নি দ্রুত সেসব কমিটি গঠনের কাজ শেষ করার জন্য।
দলের বিশ্বস্থ একটি সূত্র জানায়, গত কয়েকদিন আগে জগন্নাথপুরের সবকটি ইউনিয়নের সম্মেলনের সময়সীমা নির্ধারণের কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে গত মঙ্গলবার কলকলিয়া, পাটলী ও মিরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনের ঘোষণা দেয়া হয়। কলকলিয়া ইউনিয়নে সম্মেলন হবে আগামী ৩ ডিসেম্বর, পাটলী ইউনিয়নে ৭ ডিসেম্বর এবং মিরপুর ইউনিয়নে ১০ ডিসেম্বর । এ নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আকমল হোসেন জানিয়েছেন, ইউনিয়ন পযার্য়ে সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ হয়নি তবে ইউনিয়ন পয়ার্য়ে সম্মেলন করার জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।
ওয়ার্ডগুলোর কমিটি গঠন ও ইউনিয়ন পয়ার্য়ের সম্মেলন না হওয়াতে সম্মেলনকে ঘিরে কর্মীদের উচ্ছ্বাস আর উদ্দীপনা ম্লান হতে বসেছে। এরমধ্যে উপজেলা সম্মেলনের নির্ধারিত তারিখের পরে ইউনিয়ন সম্মেলনের তারিখ ঘোষণায় দলীয় নেতাকর্মীরা হতাশ হয়ে পড়েছেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল পদে থাকা এক নেতা জানান, দলের অধিকাংশ নেতা কর্মী সম্মেলনের পক্ষে। কারণ সম্মেলনের মাধ্যমে যোগ্যতার ভিত্তিতে দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালিত হবে। এতে দল উপকৃত হবে। তিনি জানান, এখনও ওয়ার্ড পযার্য়ের কমিটির কাজ অসমাপ্ত। এমনকি একটি ইউনিয়নেরও সম্মেলন হয়নি। এরমধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ১ ডিসেম্বর নির্ধারিত হলেও ৩ ডিসেম্বর থেকে ইউনিয়নগুলোতে সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করায় উপজেলা সম্মেলন নিয়ে রহস্য সৃষ্টি হয়েছে।
জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আকমল হোসেন জানান, সম্মেলন সফল করার লক্ষ্যে এরমধ্যে আমরা ওয়ার্ড কমিটিগুলো প্রায় শেষ করে ফেলেছি। ইউনিয়নগুলোর সম্মেলন করার জন্য সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে তারিখ ঘোষণা হয়নি। এক দুইদিনের মধ্যে ঘোষণা হতে পারে বলে তিনি জানান।
গতকাল শুক্রবার এব্যাপারে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম,এনামুল কবির ইমন বলেন, জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ১ ডিসেম্বর নিধারিত করা হয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে গত বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তুু আমাদের জেলা সভাপতি অসুস্থ থাকায় বৈঠক হয়নি।
তিনি জানান, সম্মেলন হবে। তবে সময় হয়তো একটু পিছাতে পারে।