জগন্নাথপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু

জগন্নাথপুর অফিস
জগন্নাথপুর পৌরসভার ইসহাকপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত যুবক সরোয়ার হোসেন (২১) মারা গেছে। গত শুক্রবার রাতে ১২টার দিকে টানা ১১ দিন মৃতে্যুর সঙ্গে লড়াই করে অবশেষে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মৃতে্যুর কোলে ঢলে পড়ে। নিহত যুবক ইসহাকপুর এলাকার সুন্দর আলীর ছেলে। এ ঘটনায় ফের এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, ইসহাকপুরের আব্দুস সত্তারের পক্ষের লাল মিয়ার ছেলে রানা মিয়া ও আব্দুল জলালের পক্ষের সুন্দর আলীর ছেলে সরোয়ার হোসেনের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ ছিল। যার জের ধরে গত ২৮ অক্টোবর রাত ১ টার দিকে সরোয়ার হোসেন জগন্নাথপুর উপজেলা সদর থেকে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি যাওয়ার পথে মনাই ভাংতি নামক এলাকার সড়কে আসলে প্রতিপক্ষের লোকজন হামলা চালিয়ে তাকে ধারালো অস্ত্র নিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় সরোয়ারের স্বজনরা সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন তাকে। এ ঘটনায় দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে আবারো উত্তেজনা দেখা দেয়। খবর পেয়ে গত সোমবার রাতে জগন্নাথপুর থানা পুলিশ লাল মিয়ার পক্ষের আবদুল কাহারের বাড়ির থেকে একটি পাইপগান ও বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্রসহ ভাড়াাটিয়া সন্ত্রাসীসহ ১৩ জনকে আটক করেন। এঘটনায় মঙ্গলবার জগন্নাথপুর থানায় এসআই অনুজ কুমার বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করেন।
অপরদিকে হামলায় আহত যুবকের বাবা সুন্দর আলী বাদী হয়ে আমির হামজা পংকি মিয়াকে প্রধান আসামী করে ২২ জনকে আসামী করে মঙ্গলবার জগন্নাথপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ এর মধ্যে ৫জনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে।
জগন্নাথপুর থানার এসআই অনিক কুমার দেব হামলায় আহত যুবকের মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গতকাল শনিবার ময়নাতদন্তের পর লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে। হামলার ঘটনার মামলাটি হত্যা মামলা হিসেবে আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করব।