জগন্নাথপুরে ভুয়া নাগরিক ‘সনদধারী’ বহিরাগতদের নিয়োগ না দেয়ার দাবি

আলী আহমদ, জগন্নাথপুর
জগন্নাথপুর উপজেলায় প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক পদে ২০১৮ সালে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ভুয়া নাগরিক সার্টিফিকেট সংগ্রহকারী বহিরাগতের নাগরিক সনদপত্র বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। এছাড়া স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে জগন্নাথপুরের ইউএনওর মাহফুজুল আলম মাসুমের নিকট।
বুধবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় জগন্নাথপুরের সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে স্থানীয় পৌর পয়েন্টে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে হয়। এতে জগন্নাথপুরের স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, শিক্ষকসমাজ, সাংবাদিক, অভিভাবকবৃন্দসহ সর্বস্তরের প্রায় তিনশতাধিক জনসাধারণ অংশ নেন।
শিক্ষক আলমগীর হোসেনের পরিচালনায় মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন জগন্নাথপুর পৌরসভার কাউন্সিলর শফিকুল হক, আবাব মিয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক হাজী আব্দুল জব্বার, শিক্ষক রমেন্দ্র গোপ, বিজয় কৃষ্ণ ক্ষত্রিয়, রূপক কান্তি দেব, গোপাল চন্দ্র, শাহজাহান সিরাজী, নুরুল
হক, অভিভাবকদের পক্ষে সাজ্জাদুর রহমান, কুতুব উদ্দিন, পৌর যুবলীগ নেতা আকমল হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাফরোজ ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল মুকিত, সহকারি শিক্ষক পদে লিখিত পরীক্ষায় উর্ত্তীণ মানববন্ধন বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি জগন্নাথপুরের স্থানীয় বাসিন্দা চাকুরিপ্রত্যাশি এম, শামিম আহমদ, সাইদুল রহমান, শের আলী, স্টুডেন্টস কেয়ার জগন্নাথপুর’র সভাপতি মাসুম আহমদ প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, এবার জগন্নাথপুর উপজেলা থেকে প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক পদে ৫০১ প্রার্থী লিখিত পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হয়েছেন। এরমধ্যে অন্য জেলার লোক (বহিরাগত) রয়েছেন। তাঁরা স্থানীয় নাগরিক সেজে প্রতারণার মাধ্যমে ভুয়া নাগরিক সনদ নিয়ে চাকুরি নিতে তৎপর হয়ে উঠেছেন। এতে স্থানীয়রা নিজের অধিকার থেকে বঞ্চিত হবেন।
মানববন্ধনে অংশ নেয়া জগন্নাথপুর পৌরসভার কাউন্সিলর আবাব মিয়া বলেন, কিছু কিছু জনপ্রতিনিধির নিকট থেকে ভুয়া নাগরিক সার্টিফিকেট সংগ্রহ করে চাকুরিপ্রার্থী অন্য জেলার লোক। এটি অনেক বছর ধরে চলে আসছে। তবে বহিরাগতের বিষয়ে আমরা সচেতন রয়েছি। স্থানীয়দের অধিকার বাস্তবায়নে আামাদের সমর্থন রয়েছে।