জগন্নাথপুরে মোয়াজ্জিনকে কুপিয়ে মসজিদের টাকা নিয়ে পালিয়ে গেল দুর্বৃত্তরা

জগন্নাথপুর অফিস
জগন্নাথপুরে একদল মুখোশধারী দুবৃর্ত্তদের হামলায় আমির হোসেন (২৮) নামের এক মোয়াজ্জিন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। গত শনিবার রাতে এ ঘটনাটি ঘটেছে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের সাচায়ানী-নন্দিরগাঁও পূর্বপাড়া জামে মসজিদের মোয়াজ্জিন আমির হোসেন প্রতিদিনের ন্যায় রাতের খাওয়া দাওয়া শেষে মসজিদের মিনারের দ্বিতীয় তলায় একটি কক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত ১২টার দিকে মোয়াজ্জিন মোয়াজ্জিন বলে এক ব্যক্তি তাকে ঘুম থেকে তোলে। এসময় দরজা খোলা মাত্রই মুখোশধারী ৫ থেকে ৭ জনের একটি দল মোয়াজ্জিনের ওপর হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাঁকে গুরুতর আহত করে মসজিদের টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। বিষয়টি মোয়াজ্জিন স্থানীয়দের মোবাইল ফোনে অবহিত করলে লোকজন ঘটনাস্থলে এসে আহত মোয়াজ্জিনকে জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করেন। আহত মোয়াজ্জিন আমির হোসেন সাচায়ানী গ্রামের মৃত আইয়ুব আলীর ছেলে।
মোয়াজ্জিন আমির হোসেন জানান, রাত ১২টার দিকে একজন ব্যক্তি আমাকে ডেকে ঘুম থেকে তোলেন। তার ডাকে আমি সরল মনে দরজা খোলে দেই। তখন মুখোশধারী ৫জন আমার ওপর হামলা চালিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে বলে, আমরা জানি তোর নিকট টাকা আছে। প্রাণে বাঁচতে হলে টাকা দিয়ে দে। তা না হলে তোকে মেরে ফেলব। আমি ভয়ে তাদেরকে মসজিদের একটি শোকেসের চাবি দেই। তখন তিনজন আমাকে ধরে রেখে অপর দুইজন নিচের তলায় নেমে যায়। কিছুক্ষণ পরে ওই দুই ব্যক্তির ডাকে আমাকে ছেড়ে তারা চলে যায়। দুর্বৃত্তরা শোকেসের ড্রয়ার থেকে মসজিদ উন্নয়নের ১৫ থেকে ১৬ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে।
জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। আমরা বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছি।