জগন্নাথপুরে শহীদ মিনার ভেঙে পড়েছে পুকুরে

জগন্নাথপুর অফিস
জগন্নাথপুর উপজেলার সদরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ভেঙে পড়েছে পুকুরের পানিতে। দীর্ঘদিন ধরে শহীদ মিনারের মুল স্তম্ভে ফাটল দেখা দেয় এবং নীচের মাটি ধসে পড়ছিল। তবে শহীদ মিনার হুমকির মুখে পড়লেও সংস্কারের কোন উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।
শনিবার দুপুরে শহীদ মিনার ধসে পুকুরে পড়ে যায়। সাংস্কৃতিক কর্মীরা অবিলম্বে ওই জায়গায় নতুন শহীদ মিনার নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।
এলাকাবাসী সূত্র জানায়, উপজেলা সদরের ডাকবাংলো সড়কের জেলা পরিষদের পুকুর পাড়ে ১৯৭১ সালে দেশ স্বাধীনের পর একটি শহীদ মিনার নির্মাণ করে জাতীয় দিবস সমূহ উদযাপন করা হয়। ২০১৩ সালের সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ প্রশাসক এম এনামুল কবির ইমন ১৩ লাখ টাকা ব্যয়ে পুরাতন শহীদ মিনার ভেঙে নতুন শহীদ মিনার নির্মাণ করেন। সম্প্রতি শহীদ মিনারের ফাটল দেখা দেয়। শনিবার শহীদ মিনারের পেছনের পুকুরে মূল বেদির অংশ ধসে পড়ে।
ডাক বাংলো সড়কের ব্যবসায়ী আফু মিয়া বলেন, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারটি দীর্ঘদিন ধরে ঝুঁকিতে ছিল। আমরা এটি সংস্কারের দাবি জানিয়েছিলাম। সংস্কার না হওয়ায় এটি ধসে পড়ে। দ্রুত নতুন শহীদ মিনার নির্মাণ করতে জোর দাবি জানাই।
জগন্নাথপুর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সদস্য আব্দুল জব্বার বলেন, অনেদিন ধরেই পুরাতন শহীদ মিনারের জায়গায় একটি নতুন সুরম্য শহীদ মিনার নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসছি আমরা। অবিলম্বে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া দরকার।
বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হক জানান, জগন্নাথপুরের প্রধান এই শহীদ মিনারে জাতীয় সকল দিবসে শহীদদের স্মরণে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এছাড়া নানা সাংস্কৃতিক কার্যক্রম এখানে হয়ে আসছিল। দ্রুত শহীন মিনার নির্মাণের দাবি জানান তিনি।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাজেদুল ইসলাম বলেন, নতুন শহীদ মিনার নির্মাণে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।