জগন্নাথপুর পৌর যুবলীগের কমিটি স্থগিত ঘোষণা

জগন্নাথপুর অফিস
জগন্নাথপুর পৌর যুবলীগের কমিটি ঘোষণার তিনদিন পর স্থগিত করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার পৌর যুবলীগের কমিটি ঘোষণার পর গত শনিবার রাতে এ কমিটি স্থগিত ঘোষণা করে সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগ।
রবিবার কমিটি স্থগিত করার সত্যতা নিশ্চিত করে সুনামগঞ্জ জেলা যুব লীগের যুগ্ম আহবায়ক আসাদুজ্জামান সেন্টু বলেন, ‘জগন্নাথপুর পৌর যুবলীগের কমিটি আপাতত স্থগিত ঘোষণা করেছি আমরা। এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত জানানো হবে।’
দলীয় নেতা কর্মীরা জানান, ১৯৯৮ সালে জগন্নাথপুর সদর ইউনিয়নকে পৌরসভায় রূপান্তরিত করা হয়। পরবর্তীতে ১৯৯৯ সালে কেন্দ্রীয় কমিটি সুনামগঞ্জের যুবলীগের সব ক’টি উপজেলা ও পৌর যুবলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে। এরপর থেকে আর কোনো কমিটি হয়নি।
দীর্ঘ ২০ বছর পর গত ২১ মার্চ জগন্নাথপুর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি কামাল উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন লালনের যৌথ সাক্ষরে আকমল হোসন ভূঁইয়াকে আহবায়ক, সিদ্দিকুর রহমানকে সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক, রফিকুল ইসলামকে যুগ্ম আহবায়ক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট জগন্নাথপুর পৌর যুবলীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। এ কমিটির বিরোধিতা করে গত শুক্রবার (২২ মার্চ) ঘোষিত কমিটির দুই যুগ্ম সম্পাদকসহ অধিকাংশ নেতা কর্মী পৌর শহরে ঝাড়– মিছিল করে প্রতিবাদ জানায়।
গত শনিবার বিকেলে কমিটির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক সিদ্দিকুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক রফিকুল ইসলামসহ ২৫ জন নেতাকর্মী পদত্যাগ করেন। এর পর ওইদিন রাতে জেলা যুবলীগ কমিটি স্থগিত ঘোষণা করেন।
ঘোষিত কমিটির সিনিয়র যুগ্ম আহবায় সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘টাকার বিনিময়ে অরাজনৈতিক, অপরিচিত, মাদকাসক্ত ব্যক্তিদের দিয়ে অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে ঘোষিত এ কমিটি প্রত্যাখান করে ২৫ জন নেতাকর্মী পদত্যাগ করে গঠনতন্ত্র মোতাবেক নতুন কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছি আমরা। আমাদের দাবির প্রেক্ষিতে জেলা কমিটি বিতর্কিত কমিটি স্থগিত ঘোষণা করায় নেতাকর্মীদের মধ্যে এখন স্বস্তি ফিরেছে।’
ঘোষিত কমিটির আহবায়ক আকমল হোসেন ভুঁইয়া বলেন, ‘কমিটি স্থগিতের বিষয়টি আমার জানা নেই।’
এ বিষয়ে জগন্নাথপুর উপজেলা যুবলীগ সভাপতি কামাল উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন লালন বলেন, ‘গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আমরা সবার মতামতের প্রেক্ষিতে কমিটি ঘোষণা করেছি।’