জনতার মুখোমুখি প্রার্থী রতন-নজির

আমিনুল ইসলাম, তাহিরপুর
জনগণের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে সুনামগঞ্জ-১ নির্বাচনী এলাকার নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন ও ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী নজির হোসেন এক মঞ্চে উপস্থিত হয়েছেন।
শনিবার বেলা ১১টায় তাহিরপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদ মাঠে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) এর আয়োজনে নির্বাচনী এলাকার জনগণের সরাসরি প্রশ্নোত্তরের জবার দেন এই দুই প্রধান প্রার্থীসহ ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের পাখা প্রতীকের প্রার্থী ফখরুদ্দিন।
জনতার সরাসরি প্রশ্নোত্তরে ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন, ‘স্বাধীনতার ৩৭ বছর পর দেশে যে উন্নয়ন করা হয়নি বিগত ১০ বছরে আমি এলাকাতে সেই উন্নয়ন করেছি। যাদুকাটা নদীতে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এলজিইডি‘র দীর্ঘতম সেতু নির্মাণ কাজ চলছে। মহেষখলা হতে টেকেরঘাট পর্যন্ত রাস্তায় ৩৭টি ব্রীজ নির্মাণ হচ্ছে। একটি রাস্তার উপর ৩৭টি ব্রীজ নির্মাণ একটি নজিরবিহীন কাজ। আমি আবারো নির্বাচিত হলে উড়াল সেতুর মাধ্যমে হাওরাঞ্চলের যোগাযোগ উন্নত করা হবে।’
নজির হোসেন প্রশ্নোত্তরে বলেন, ‘দেশের বৃহত্তম রামসার সাইট টাঙ্গুয়ার হাওরকে ইকো ট্যুরিজমের আওতায় আনা হবে। হাওরের মানুষকে বজ্রপাতে মৃত্যু থেকে বাঁচাতে হলে সারা দেশ তাল গাছ লাগালে হবে না। উন্নত প্রযুক্তির মাধ্যমে তা রোধ করতে হবে।’
পাখা প্রতীকের প্রার্থী ফখরুদ্দিন প্রশ্নোত্তরে বলেন, ‘দেশে উন্নয়ন কাজে যে টাকা ব্যয় হয় তা থেকে শতকরা ৭০ ভাগ টাকা দুর্নীতি হয় বাকি ৩০ ভাগ টাকা দিয়ে উন্নয়নের কাজ হয়। ইসলামী শাসনতন্ত্র সারা দেশে ২৯৯টি আসনে নির্বাচন করছে। আমরা যদি ক্ষমতায় যেতে পারি তাহলে দেশ থেকে চিরতরে দুর্নীতি তুলে দেয়া হবে।’