জামালগঞ্জে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ বন্ধ

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি
জামালগঞ্জ উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ^জিত দেব’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ থেকে রক্ষা পেয়েছে ১৪ বছরের এক কিশোরী।
জানা যায়, শুক্রবার বিকেলে জামালগঞ্জ সদর ইউনিয়নের কদমতলী গ্রামে ১৪ বছরের এক মেয়ের সঙ্গে জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের সদরকান্দী গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে সাগর মিয়ার বিয়ের আয়োজন চলছিল। এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জামালগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন এবং ইউপি সচিব গুনেন্দ্র কুমার তালূকদারকে বিয়ে বন্ধের নির্দেশ দেন। পরে ইউপি চেয়ারম্যান কনের বাড়িতে গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে বিয়ে বন্ধ করেন।
এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন জানান, ইউএনও সাহেব ফোন দিয়ে বিয়ে বন্ধ করার জন্য বল্লে আমি গ্রাম পুলিশ পাঠিয়ে বিয়ে বন্ধ করে দিয়েছি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ^জিত দেব জানান, উপজেলায় বাল্য বিবাহ কোন ভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। বাল্য বিবাহের ঘটনা ঘটলে সংশ্লিষ্ট পরিবার, অভিভাবক, বর, আয়োজক ও নিকাহ রেজিষ্টার বা কাজীদের আইনের আওতায় আনা হবে। কোন চেয়ারম্যান কিংবা ইউপি সদস্য ভুয়া জন্ম নিবন্ধনের সাথে জড়িত থাকলে তদন্ত সাপেক্ষে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে। এক্ষেত্রে কোন প্রকার ছাড় দেওয়া হবে না।