জামালগঞ্জে ৪২৮০ হেক্টর জমিতে আমন চাষ, বাম্পার ফলনের প্রত্যাশা

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি
হেমন্তের খোলা আকাশ। দিগন্ত বিস্তৃত ধানের সবুজ ক্ষেত ¯িœগ্ধ বাতাসে দোল খাচ্ছে। কদিন পরেই চারাগুলো হলুদ বর্ণ ধারন করবে। এর পর সোনালী ধানের শীষের জলমল করবে মাঠের পর মাঠ। কৃষাণীর শূন্য গোলা ভরে উঠবে রাশি রাশি সোনালী ধানে।
এবার ৪২৮০ হেক্টর জমিতে আমনের বাম্পার ফলনের আশা করছে উপজেলার আমনচাষীরা। অনুকূল আবহাওয়া এবং রোগবালাই ও পোকামাকড়ের আক্রমন না থাকায় সেই সম্ভাবনা আরও বেড়েছে। কথাগুলো বলেছেন এলাকার কৃষকগণ।
উপজেলা সদর ইউনিয়নের চানপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম জানান, আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় মাঠের পর মাঠ সবুজের সমারোহ যেন দোল খাচ্ছে। তার মতে এবছর বৃষ্টিপাতের হার কম থাকলেও কোন সমস্যা হয়নি। ফলনের পর ভাল দাম পাওয়ার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী।
তিনি আরও বলেন, আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ধান ভাল হয়েছে। ধান গাছে শিষ গজানো থেকে শুরু করে ধান পাকার আগ পর্যন্ত আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে যে কোন সময়ের চেয়ে ভাল ফলন হবে। তারা এবার আমন মৌসুমের শুরুতেই বুকভরা আশা নিয়ে দিন ভর মাথার ঘাম পায়ে ফেলে মাঠে কাজ করছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আলা উদ্দিন বলেন, জামালগঞ্জে এবার ৪২৮০ হেক্টর জমিতে আমন ধানের আবাদ হয়েছে। উপজেলা ৬টি ইউনিয়নে আমন ধান চাষ করেছেন কৃষকেরা। গত বছর ধানের ধানের ন্যয্য মূল্য পাওয়ায় ধান চাষে আগ্রহী হচ্ছেন কৃষকেরা। আমন ধানের রোগ বালায় নিয়ন্ত্রনে মাঠ পর্যায়ে সকল কর্মকর্তাগণ তৎপর রয়েছে। আমাদের আশা আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে আমন ফলনে বাম্পার ফলন হবে। এবার লক্ষ মাত্রার চেয়ে বেশী ফলন আশা করছি।