জেলার ৩,৮৮,৮৪৩ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে

স্টাফ রিপোর্টার
সুনামগঞ্জে আগামীকাল শনিবার জেলার ৩ লাখ ৮৮হাজার ৮৪৩ জন শিশুকে ভিটামিন এ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এর মধ্যে ১ বছর থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশু ৩ লাখ ৪৬ হাজার ৪৯২ এবং ৬ মাস থেকে ১১ মাস বয়সী শিশু ৪২হাজার ৩৫১ জন।
বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের প্রথম রাউন্ড উপলক্ষে সুনামগঞ্জ জেলা পর্যায়ে কর্মপরিকল্পনা ও অবহিতকরণ সভায় এই তথ্য জানানো হয়। সুনামগঞ্জ পৌর শহরের ইপিআই ভবনে এই সভা হয়। জেলা সিভিল সার্জন আশুতোষ দাশের সভাপতিত্বে সভায় ক্যাম্পেইনের সার্বিক প্রস্তুতি তুলে ধরে বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের চিকিৎসক আবুল কালাম।
সভায় জানানো হয়, সুনামগঞ্জ জেলায় শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত জেলার ৮৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার স্থায়ী-অস্থায়ী ২হাজার ২৩০টি কেন্দ্রে শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাম্পসুল খাওয়ানো হবে। এ সব কেন্দ্রে সুপারভাইজার, স্বাস্থ্য সহকারীসহ ৫হাজার ৩৭৩জন স্বেচ্ছাসেবী দায়িত্ব পালন করবেন। ক্যাম্পেইন কার্যক্রম সমন্বয় করার জন্য কেন্দ্রীয়ভাবে একটি তদারক সেল সার্বক্ষণিক খোল থাকবে। সুনামগঞ্জের দুর্গম হাওর এলাকা ধর্মপাশা, তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর, দোয়ারাবাজার, দিরাই ও শাল্লা উপজেলার ৩৫টি ইউনিয়নে পরবর্তী চারদিন ক্যাম্পেইন থেকে বাদপড়া শিশুদের খোঁজে বের করে তাদের ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।
সিভিল সার্জন বলেন, সুনামগঞ্জে জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইনের প্রথম রাউন্ড সফল করতে ইতিমধ্যে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষদের সচেতন করতে বিভিন্নভাবে প্রচার কার্যক্রম চলমান আছে। সব মানুষের সহযোগিতা ছাড়া এই বিশাল কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা কঠিন। এ জন্য গণমাধ্যমকর্মীদের সহায়তা চান তিনি।
কর্মপরিকল্পনা ও অবহিতকরণ সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের সহকারী পরিচালক (সিসি) ডা. ননী ভূষণ তালুকদার, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের জ্যেষ্ঠ স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা ওমর ফারুক, সির্ভিল সার্জন কার্যালয়ের কর্মকর্তা ফজলুল করিম প্রমুখ।