ট্যাকেরঘাটে নির্মিত হচ্ছে ছিন্নমূল ৪০ পরিবারের আবাসন

স্টাফ রিপোর্টার, তাহিরপুর
মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত ট্যাকেরঘাটে নির্মিত হতে যাচ্ছে তাহিরপুর উপজেলার ছিন্নমূল ৪০ পরিবারের আবাসন। বসতঘর, রান্নঘর, মানসম্মত পায়খানা সবকিছু মিলে এতে ব্যয় হবে ৬০ লক্ষ টাকা। তাদের বিনোদনের জন্য থাকবে একটি মালটিপারপাস হল রুম। এতে ব্যয় হবে ৭ লক্ষ ৯৩ হাজার টাকা। বিশুদ্ধ পানির জন্য বরাদ্দ রয়েছে এক লক্ষ ২০ হাজার টাকা। প্রতি ঘরের মালিকদের কবুলিয়াত দলিল বাবত বরাদ্দ রয়েছে ২০ হাজার টাকা। সবকিছু মিলে এতে ব্যয় হবে ৬৯ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা।
সরকারী পরিপত্র অনুযায়ী ভূমি মন্ত্রণালয়ের গুচ্ছগ্রাম ২য় পর্যায় (সিভিআরপি) প্রকল্পের অধীনে প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি হবেন উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সদস্য সচিব হবেন সহকারী কমিশনার (ভূমি)। এছাড়াও সদস্যরা হলেন জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের আরডিসি, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান ও পুনর্বাসিত পরিবারের একজন প্রতিনিধি।জানা যায়, ঠিকাদারের মাধ্যমে কাজ হবে না মর্মে ঠিকাদারের মুনাফা, ওভারহেড, ভ্যাট ব্যতীত প্রাক্কলন মূল্য ধরা হয়েছে। কাজের সমুদয় অর্থ এককালীন অগ্রিম উত্তোলন করা যাবে মর্মে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।
আবাসন নির্মাণ কাজের মধ্যে পিলার, ল্যাট্রিন রিং ও ¯ø্যাব নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।
শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খসরুল আলম বলেন, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যরে লীলাভূমি টেকেরঘাটে গুচ্ছ গ্রামটি নির্মাণ হলে সীমান্ত এলাকার সৌন্দর্য বেড়ে যাবে।
তাহিরপুরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিজেন ব্যানার্জী বলেন, ভূমি মন্ত্রণালয়ের গুচ্ছগ্রাম ২য় পর্যায় (সিভিআরপি) প্রকল্পের নিয়মানুযায়ী নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের আরডিসি’ও যুক্ত রয়েছেন এ কাজে। আশা করি দ্রæত এ কাজটি সম্পন্ন হবে।