তাহিরপুরে আদিবাসি নারীকে মারধরের ঘটনায় অসন্তোষ

স্টাফ রিপোর্টার, তাহিরপুর
তাহিরপুরে রাজাই গ্রামের জাকির হোসেন কর্তৃক একই গ্রামের আদিবাসী নারী গৃহলা হাজংকে মারধরের ঘটনায় সীমান্তের আদিবাসিদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বুধবার দুপুরে উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের রাজাই গ্রামের আব্দুস ছত্তারের ছেলে জাকির হোসেন একই গ্রামের আদিবাসি দশরথ হাজং এর স্ত্রী গৃহলা হাজংকে ৫শ’ টাকা পাওনা আদায়ের জের ধরে প্রকাশ্যে চানপুর বাজারের রাস্তায় কিলঘুষি ও মারধর করে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার কড়ইগড়া পানি ব্যবস্থাপনা অফিস কেন্দ্রে বিশ্ব আদিবাসি দিবসের আলোচনা সভায় বক্তরা গৃহলা হাজংকে মারধরের ঘটনার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন এবং জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের নিকট জোড় দাবি জানান। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে স্থানীয় ইউপি সদস্য স¤্রাট মিয়া আপোষে মীমাংসার জন্য গতকাল শুক্রবার সকালে গৃহলা হাজং এর বাড়িতে গেলে তারা আপোষের বিষয়ে সম্মত না হননি। শুক্রবার বিকেলে গৃহলা হাজং বাদী হয়ে জাকির হোসেনকে আসামী করে তাহিরপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
আদিবাসি নেতা রাজাই গ্রামের এন্ড্র সলমার বলেন, ৫শ’ টাকা দেনার বিষয় নিয়ে একজন আদিবাসি নারীকে রাস্তায় কিলঘুষি ও মারধর করা খুবই নিন্দনীয়। দোষীর বিচার হওয়া উচিৎ।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্য সুষমা জাম্বিল বলেন, একজন আদিবাসি নারীকে রাস্তার ওপরে মারধর করার বিষয়টি দুঃখ জনক । তিনি এ ঘটনার নিন্দা জানান।
তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নন্দন কান্তি ধর বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।