তাহিরপুরে ভাঙাচোরা কালভার্ট ঝুঁকি নিয়ে চলাচল

আমিনুল ইসলাম, তাহিরপুর
তাহিরপুর উপজেলায় বাদাঘাট-গুটিলা সড়কের বক্স কালভার্টটি ভেঙেচুরে গেছে। এ কারণে কালভার্টটির ওপর দিয়ে যানবাহন চলাচল করায় প্রায়ই দুর্ঘটনার কবলে পড়ছেন পথচারীরা। তবে এর সংস্কারে কোনো উদ্যোগ নেই কর্তৃপক্ষের।
ভাঙাচোরা কালভার্টটি উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়ন অফিসের এক কিলোমিটার দক্ষিণে পড়েছে। হেমন্ত মৌসুমে রাস্তার ওপর দিয়ে মোটরসাইকেল, অটোরিকশা ও অন্যান্য যানবাহনে আসা পর্যটকরা শিমুল বাগান, শহীদ সিরাজ লেক ও টেকেরঘাট যাতায়াত করে থাকেন। দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের বড়ছড়া, চারাগাঁও ও বাগলী স্থল শুল্কস্টেশনে যাতায়াত করে থাকেন। কিন্তু ভাঙাচোরা কালভার্টটি পার হতে গিয়ে ভোগান্তির শিকার হতে হয় তাদের।
উত্তর বড়দল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি জামাল উদ্দিন জানান, প্রায় এক বছর ধরে উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন বক্স কালভার্টটি ভেঙে পড়ে আছে। অটোরিকশা চালকরা তাদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ওপরে স্টিলের সিট ফেলে যাত্রী নিয়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে চলাচল করছে। এতে প্রায় সময় অটোরিকশা উল্টে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে আহত হন যাত্রীরা।
উত্তর বড়দল ইউনিয়নের বড়গুপ টিলা গ্রামের আদিবাসী নেতা পুলক আজিম জানান, কিছুদিন আগে সন্ধ্যার পর বাদাঘাট বাজার থেকে ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন তিনি। উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদের কাছাকাছি বক্স কালভার্টের ওপর আসা মাত্র চালক মোটরসাইকেল নিয়ে তাকেসহ ছিটকে পড়েন। এতে তারা দু’জনই আহত হন।
এ বিষয়ে উত্তর বড়দল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম বলেন, বাদাঘাট-উত্তর বড়দল সড়কটি এলজিইডির রাস্তা। এ রাস্তা কোনো ধরনের ভাঙাচোরা দেখা দিলে এলজিইডিই মেরামত করবে।
চেয়ারম্যান আরও বলেন, অনেকবার এলজিইডি কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। কিন্তু কালভার্টটি সংস্কারের ব্যাপারে কোনো উদ্যোগ নেননি তারা। রাস্তায় চলাচলকারী মানুষের দুর্ভোগ দেখে ব্যক্তিগত টাকা দিয়ে বক্স কালভার্টটি মেরামত করে দেবেন বলে জানান তিনি।