তাহিরপুরে শিক্ষার্থীকে বেধরক পেটানোয় মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

স্টাফ রিপোর্টার
তাহিরপুরে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে বেধরক মারপিটের অভিযোগে এক শিক্ষককে পুলিশ আটক করেছে। ওই শিক্ষকের নাম মনির হোসেন। তিনি রতনশ্রী হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক। শুক্রবার দুপুরে ওই শিক্ষককে আটক করা হয়।
স্থানীয় লোকজন ও আহত শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা জানান, তাহিরপুর উপজেলা সদরের পাশের ভাটি তাহিরপুরের খায়রুল ইসলাসের ছেলে শাহরিয়ার হোসেন (১৬) রতনশ্রী হাফিজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী। সে মাদ্রাসায় থেকেই পড়াশুনা করে। মঙ্গলবার শাহরিয়ার শিক্ষকের সঙ্গে বেয়াদবি করায় শিক্ষক তাকে বাশের লাটি দিয়ে বেধরক পিটিয়েছেন। তার হাত, পা ও পিটের বিভিন্ন অংশে জখমের দাগ রয়েছে। শিক্ষকের মার খেয়ে মাদ্রসা থেকে পালিয়ে যায় এই শিক্ষার্থী। বাড়িতে গেলে অভিভাবকরাও মারতে পারেন এই ভয়ে বাড়িতেও যায় নি সে। অভিভাবকরা খোঁজাখুঁজি করতে করতে আজ (শুক্রবার) সকালে তাহিরপুর উপজেলা সদরে পান তাকে। পরে ছেলেটি অভিভাবকদের ঘটনা জানায়।
শরীরে আঘাতের চিহৃ দেখে শাহ্রিয়ারের বাবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও থানার ওসিকে নিয়ে তার ছেলের শরীরে আঘাতের চিহৃ দেখান।
খায়রুল ইসলাম বললেন, ছেলেটির শরীরের আঘাত দেখে খুবই কষ্ট পেয়েছি। এজন্য পুলিশকে জানিয়েছি। এমন শিক্ষকের বিচার হওয়া জরুরি।
তাহিরপুর থানার ওসি আব্দুল লতিফ জানালেন, বিষয়টি জানার পরই শিক্ষক খায়রুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য থানায় আনা হয়েছে। এখনো (বিকাল সাড়ে ৪ টা পর্যন্ত) কেউ এই বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দেন নি।