তাহিরপুরে শিশু ধর্ষণ

তাহিরপুর প্রতিনিধি
তাহিরপুরে এক দরিদ্র শিশুকে ধর্ষণ করে ধর্ষকের বাড়ির সামনে ধান ক্ষেতে ফেলে রেখেছে লম্পট ধর্ষক। লম্পট ধর্ষকের নাম নাজু মিয়া (২০)। লম্পট ধর্ষক উপজেলার দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের নালেরবন্দ গ্রামের আলিনূর মিয়ার ছেলে। এই ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাতে। সোমবার ৫টার দিকে সংবাদ পেয়ে তাহিরপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে শিশুটিকে ধান ক্ষেত থেকে উদ্ধার করেছে।
জানা যায়, রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ধর্ষক নাজু তার ব্যবহত মোবাইল ফোন দিয়ে এতিম শিশুর মোবাইলে ফোন করে তার সঙ্গে কথা আছে বলে শিশুটি কে ঘর থেকে বাইরে নিয়ে আসে। এক পর্যায়ে শিশুটির মুখে গামছা বেধে ধর্ষকের বাড়ির সামনে ধান ক্ষেতে নিয়ে ধর্ষণ করে অচেতন অবস্থায় ফেলে রেখে যায়। শিশুটির জ্ঞান ফিরলে ধর্ষকের বাবা ও মা কে বিষয়টি জানালে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে পুনরায় এতিম শিশুটিকে মারপিট করে ধান ক্ষেতে
ফেলে রাখে। সোমবার সকালে পুলিশ কে বিষয়টি জানালে তাহিরপুর থানার এস আই সাইফুর রহমান ও এস আই আমির ঘটনাস্থলে এসে এতিম শিশুটি কে ধান ক্ষেত থেকে কাদা মাখা অবস্থায় উদ্ধার করেন।
ভিকটিমের মা বলেন, ধর্ষক নাজু সব সময় আমার মেয়েকে রাস্তা ঘাটে উত্যক্ত করতো। তারা প্রভাবশালী হওয়ায় বিচার দিলেও বিচার করতো না। বরং আমার মেয়েকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিতো।
নাজুর পিতা আলিনুর মিয়া বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, তার ছেলের ঘরে সোমবার সকালে শিশুটি চলে আসে। পরে স্থানীয় ওয়ার্ড সদস্যর মাধ্যমে তাকে ফিরিয়ে দিতে চাইলে সে বাড়িতে না গিয়ে ধান ক্ষেতে শুয়ে থাকে। তাকে কোন ধরনের নির্যাতন করা হয়নি।
তাহিরপুর থানর ওসি নন্দন কান্তি ধর বলেন, এ ধরনের একটি সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে ভিকটিম কে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে এখনও কোন মামলা দায়ের করা হয়নি।