তিনি জনদরদি মানুষ ছিলেন

জামালগঞ্জ অফিস
পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি বলেছেন, প্রয়াত ইউসুফ আল আজাদকে আমি স্মরণ করছি। তাঁর সাথে আমার সামান্য পরিচয় ছিল, তা বেশি দিনের নয়। তবে নির্বাচন থেকে ইউসুফ আল আজাদের সাথে আমার সম্পর্ক গভীর হয়। তিনি অত্যন্ত চমৎকার এবং জনদরদি মানুষ ছিলেন। তাঁকে আমি ভালো মানুষ হিসেবে চিনি। তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করছি। আপনারা প্রয়াত ইউসুফ আল আজাদের সন্তানদের দেখে রাখবেন। এটা আপনাদের দায়িত্ব।
তিনি আরও বলেন, ভাটি অঞ্চলের বেশ কিছু কাজে আমরা হাত দিয়েছি। মোহনগঞ্জ থেকে সুনামগঞ্জ পর্যন্ত সড়কের কাজ শুরু হবে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী ভাটি অঞ্চলের মানুষের জন্য যথেষ্ট দয়াশীল। তিনি আমাকে বলেন, আপনি হাওর এলাকায় বড় হয়েছেন। তাই এই অঞ্চলের মানুষের কষ্ট আপনি বোঝবেন। অবহেলিত এ এলাকার সাথে ঢাকার যোগাযোগ ব্যবস্থার কিভাবে উন্নয়ন করা যায় সেটা দেখেন। আপনারা সাম্প্রদায়িকতা থেকে সজাগ থাকবেন। আল্লাহ্ সকল সৃষ্টির রক্ষক। সব বর্ণের মানুষকে তিনি রক্ষা করেন। অসাম্প্রদায়িক দেশ গঠনে আপনারা সহায়তা করবেন।
শনিবার বিকেলে জামালগঞ্জের সাচনা বাজার বটতলায় উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত শোকসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। উপজেলা
চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইউসুফ আল আজাদ স্মরণে অনুষ্ঠিত শোকসভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী। শোকসভার শুরুতে উপজেলা খেলাঘর আসর কর্তৃক প্রকাশিত শোক প্রকাশনা ‘ইহজাগরূক ইউসুফ’ এর মোড়ক উন্মোচন করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নানসহ অতিথিবৃন্দ।
উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী আশরাফুজ্জামানের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, সুনামগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ড. জয়া সেনগুপ্ত, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, সংরক্ষিত আসনের (সিলেট-সুনামগঞ্জ) সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট শামীমা আক্তার খানম, সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখ্ত।
অন্যদের মাঝে বক্তব্য দেন ছাতক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান, ধর্মপাশা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদ বিলকিস, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আসাদ উল্লাহ সরকার, জামালগঞ্জ উপজেলার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বীনা রানী তালুকদার, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম মবিন, ধর্মপাশা সদর ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম চৌধুরী, নেত্রকোনা জেলা আওয়ামী লীগ নেতা লুৎফুর রহমান নবাব, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি করুণা সিন্ধু তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক এম নবী হোসেন, উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান তালুকদার, ভীমখালী ইউপি চেয়ারম্যান মো. দুলাল মিয়া, জামালগঞ্জ উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মো. রজব আলী, বেহেলী ইউপি চেয়ারম্যান অসীম তালুকদার, প্রয়াত ইউসুফ আল আজাদের কন্যা শাহানা আল আজাদ, পুত্র ইকবাল আল আজাদসহ উপজেলার সকল ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।