তেলাপিয়া আর পাঙ্গাসই ভরসা

এম.এ রাজ্জাক, তাহিরপুর
তাহিরপুর উপজেলার হাট – বাজার, নদী ও হাওরে হারিয়ে যেতে বসেছে বিভিন্ন দেশীয় প্রজাতির মাছ। দেশীয় মাছ না থাকায় উপজেলার বিভিন্ন বাজারে দখল করে আছে পুকুরের তেলাপিয়া আর পাঙ্গাস মাছ। পুকুরের এ দুটি মাছ এখন অনেকের সহ্য না হলেও বর্তমানে তেলাপিয়া আর পাঙ্গাস মাছই এখাকার মানুষের একমাত্র ভারসা।
উপজেলার বাজারগুলোতে বর্তমানে শিং, পুটি, টেংরা, মলা, পাবদা, খলিশা, কৈ, টাকি, রুই, বাইম, গুলশা, বোয়াল, চাপিলা, চিংড়ি, মাগুরসহ বিভিন্ন প্রজাতীর দেশীয় মাছ এখন চোখে পড়ছেনা। উপজেলার জনতা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক বাদল চন্দ্র তালুকদার সহ অনেকেই ভরা মওসুমে হাওরের দেশীয় প্রজাতির মাছ বাজারে না থাকায় অনেকটা হতাশা প্রকাশ করেছেন।
জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আবুল হোসেন খান বলেন, বিভিন্ন হাওর ও নদী থেকে দেশীয় মাছ আহরণকারীরা স্থানীয় বাজারগুলোতে বিক্রি না করে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে শহরের মাছের আড়দারদের কাছে তা বিক্রি করছে। যার ফলে উপজেলার বাজারগুলোতে এখন আর দেশীয় মাছ পর্যাপ্ত পরিমাণ দেখা যাচ্ছেনা।’
তিনি বলেন, মৎস্য আহরণকারীরা যদি হাওরে মাছ ধরে আড়দারদের কাছে বিক্রি না করে উপজেলার বাজারগুলোতে বিক্রি করে তাহলে স্থানীয়দের কাছে দেশীয় মাছের অভাব হবে না।
এলাকাবাসী জানান, উপজেলার অধিকাংশ নদী, বিল ও হাওরে এক শ্রেণির মাছ শিকারীরা অবৈধভাবে কারেন্ট জাল, কোনা জাল ও হ্যাজেক লাইট, টচ লাইট দিয়ে মাছের পোনা ও ডিমওয়ালা মাছ অবাধে আহরণ করছে। যার কারণে আস্তে আস্তে হাওর এলাকা থেকে দেশীয় মাছ কমে যাচ্ছে। এছাড়া হেমন্ত মওসুমে সেচ দিয়ে এসব জলাশয় শুকিয়ে কীটনাশক দিয়ে মাছ ধরার ফলেও দেশীয় মাছ হারিয়ে যাওয়ার উপক্রম হচ্ছে।
মৎস্য গবেষকরা বলছেন, জনসংখ্যা বৃদ্ধি, পর্যাপ্ত পরিমাণ মৎস্য আহরণ, জলাশয়ে হেমন্ত মওসুমে পানি না থাকা, জলাশয় ভরাট, অপরিকল্পিত বাঁধ, নদীতে অপরিকল্পিত অবকাঠামো নির্মাণ, বিল, নদী শুকিয়ে মাছ, কারেন্ট জাল, কোনাজাল দিয়ে পোনা মাছ, মা মাছ ধরার ফলে কমতে শুরু করেছে দেশীয় মাছ। দেশীয় বিভিন্ন মাছ হারিয়ে যাওয়ার ফলে এখন বাজার দখল করে আছে তেলাপিয়া, পাঙ্গাস, আর সিলভার মাছ।
উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা তামব্বির আহমদ বললেন, এখন মা মাছের প্রজননের সময়। তাই হাওর ও নদীতে মাছ আহরণ করতে দেয়া হচ্ছে না। যার করণে উপজেলার বাজারগুলোতে এখন দেশীয় মাছের কিছুটা অভাব দেখা দিয়েছে। তিনি বলেন, কারেন্ট জাল বিভিন্ন বাজার থেকে আটক করা হচ্ছে। কারেন্ট ও কোনা জাল দিয়ে যাতে পোনা ও মা মাছ মৎস্য শিকারিরা আহরণ করতে না পারে সে জন্য নিয়মিত হাওর ও নদীতে অভিযান চালানো হচ্ছে।