দক্ষিণ সুনামগঞ্জে নৌকা ডুবিতে দুই জনের মৃত্যু

দ. সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জে হাওরে নৌকা ডুবিতে দুই জনের মৃত্যু ও দুই শিশু আহত হয়েছে। রোববার বিকাল ৫ টায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জের শিমুলবাঁক ইউনিয়নের জোরা সিংরা হাওরে যাত্রীবাহী নৌকা ডুবে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনার শিকার ওই ছোট নৌকায় ১২ জন যাত্রী ছিল বলে জানা গেছে।
নিহতরা হলেন, শিমুলবাঁক ইউনিয়নের উকারগাঁও গ্রামের সাজিদুর রহমানের স্ত্রী হোসনে আরা বেগম (২৬) ও পার্শ্ববর্তী জামালগঞ্জ উপজেলার ভীমখালী ইউনিয়নের জাল্লাবাজ গ্রামের ফোরকান মিয়ার ছেলে এমদাদুল হক (৫৫)। এমাদুল হক নিহত হোসনে আরা বেগমের স্বামীর খালু।
নিহত দুইজন মুক্তাখাই গ্রামের আব্দুল বাতিনের আত্মীয়। তারা মুক্তাখাই গ্রাম থেকে কেশবপুর গ্রামে আব্দুল বাতিনের বোনের ভাশুরের ৪০ দিনের সিরনি খেতে পার্শ্ববর্তী কেশবপুর গ্রামে গিয়েছিলেন। কেশবপুর থেকে ফেরার পথে হাওরে নৌকা ডুবে গেলে তারা মৃত্যুবরণ করেন। খবর পেয়ে মুক্তাখাই গ্রামের লোকজন নিহত দুইজনের লাশ ও চার শিশুসহ ১০ জনকে উদ্ধার করেন। স্থানীয়রা জানান, রোববার দুপুরে উকারগাঁও গ্রামের সাজিদুর রহমানের পরিবার ও আত্মীয় স্বজন মুক্তাখাই গ্রাম থেকে পার্শ্ববর্তী কেশবপুর গ্রামে ৪০ দিনের সিরনী খেতে যান। বিকালে বাড়ি ফেরার পথে মুক্তাখাই গ্রামের সামনে হাওরে ঝড়ো বাতাসে পড়ে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই ছোট নৌকাটি ডুবে যায়। দুই শিশুপুত্রকে বাঁচাতে গিয়ে পানিতে ডুবে মারা যান মা হোসনে আরা বেগম ও বয়সে বৃদ্ধ হওয়ায় মারা যান এমদাদুল হক। খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন নৌকা নিয়ে শিশুসহ ১০ জনকে উদ্ধার ও নিহত দুইজনের লাশ করে।
আহত দুই শিশু হল, রাফি মিয়া (৪) ও আরিফ আহমদ (২)। তাদেরকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। তারা নিহত হোসনে আরা বেগমের ছেলে।
আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে, নিহত হোসনে আরা বেগমের জা রাসেদা বেগম (২৪), জা’র ছেলে আ. বাসিত (৩),
মুক্তাখাই গ্রামের আব্দুল বাতিন (৫৫), তার ছেলে আফজল মিয়া (১৮), একই গ্রামের আফিজ আলী (৫৩), তার ছেলে সাইদ মিয়া (১০), একই গ্রামের হেনা বেগম (৫৯), ও নিহত এমদাদুল হকের মেয়ে তাওহিদা বেগম (৬) কে। আহতরা স্থানীয়ভাবে বিভিন্ন চিকিৎসা কেন্দ্রে চিকিৎসা নিয়েছেন।
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি ইখতিয়ার চৌধুরী হাওরে নৌকা ডুবিতে হতাহতের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন ।