দিরাইয়ে জমে উঠেছে মেলা : শিশুদের আকর্ষণ মাটির খেলনায়

দিরাই সংবাদদাতা
দিরাইয়ে শারদীয় দুর্গাপূজাকে কেন্দ্র করে মণ্ডপগুলোর আশেপাশে জমে উঠেছে মেলা। সড়কের দুই পাশে গড়ে উঠেছে অসংখ্য খেলনার দোকান। পূজায় ঘুরতে আসা শিশুদের আকর্ষণও থাকে সেগুলোর প্রতি। এই অস্থায়ী দোকানগুলোর মধ্যে শিশুদের আকর্ষণ বেশি মাটির তৈরি খেলনার প্রতি।
সরেজমিনে দেখা গেছে, পৌর শহরের পূজা মণ্ডপগুলোকে ঘিরে জমে উঠেছে মেলা। সড়কের দুই পাশে গড়ে ওঠেছে অসংখ্য খেলনার দোকান। পূজায় আসা শিশু ও কিশোর—কিশোরীরা মেলার ক্রেতা।
শহরের হারনপুর এলাকার সড়কের পাশে মাটির খেলনা নিয়ে বসেছে এক দোকানি। দোকানে রয়েছে মাটির পুতুল, কলস, থালা—বাসন, বাঘ, হাতি, মাছ, গরু, ডেগ, মাটির ব্যাংকসহ বিভিন্ন রকম পাখি। তাকে ঘিরে মাটির তৈরি জিনিস কিনতে ভিড় করছে শিশুরা। মাটির পুতুল প্রতি পিস ৫ থেকে ১০ টাকা, ডেগ সরা ১৫ টাকা, গরু ১০ থেকে ২০ টাকা, কলস ৪০ থেকে ৬০ টাকা, মাটির বাঘ ১০০ থেকে ১৫০ টাকা, রান্না করার সেট ১০০ টাকা, মাটির ব্যাংক ৩০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
মাটির খেলনা বিক্রেতা দেবতোষ পাল বললেন, শিশুদের মা—বাবা অন্য জিনিসপত্র কিনতে চাচ্ছে, কিন্তু শিশুরা জোর করে নিয়ে আসছে মাটির খেলনার দোকানে।
পুতুল নিতে আসা শিশু সৌরভ এর মা নমিতা তালুকদার বলেন, মাটির হাঁড়ি—পাতিল, চুলা দিয়েই ছোট বেলায় খেলতাম। এগুলো দেখে ছোটবেলায় ফিরেছি। ক্রেতা পপি মজুমদার বললেন, মাটির খেলনা কিনতে মেয়েটি টেনে নিয়ে এসেছে দোকানে। আমারও ভালোই লাগছে। মেয়ের জন্য ঐতিহ্যবাহী মাটির খেলনা কিনেছি।
দিরাই উপজেলা খেলাঘরের সভাপতি সুধাসিন্ধু রানা বলেন, মাটির খেলনা বাঙালির অন্যতম প্রাচীন মৃৎশিল্প। সুপ্রাচীন কাল থেকেই বাংলার ঘরে ঘরে মাটির খেলনা তৈরি করা হতো। অনেক দিন পর মাটির ছোট ছোট খেলনা দেখে ভালো লেগেছে।