দিরাইয়ে আ.লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি অনুমোদন

দিরাই প্রতিনিধি
দিরাইয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে সামনে রেখে ৪৩ সদস্যবিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে উপজেলা যুবলীগের সভাপতিসহ একাধিক যুবলীগ নেতা ও জেলা আওয়ামী লীগের পদধারী নেতা স্থান পেয়েছেন। জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২৪ নভেম্বর দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে এ প্রস্তুতি কমিটির অনুমোদন দেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মতিউর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবীর ইমন।
এর আগে উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় ২১ সদস্যবিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতির প্রস্তাবিত কমিটি জেলায় প্রেরণ করা হয়। প্রস্তাবিত ওই কমিটিতে রাজাকারপুত্র উপজেলা বিএনপির উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য মতিউর রহমান মতি ও উপজেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি হাফিজুর রহমান তালুকদারের অর্ন্তভুক্তি নিয়ে স্থানীয় ত্যাগী নেতাকর্মীদের ক্ষোভ দেখা দেয়। এরপর রাজাকারপুত্র মতিউর রহমান মতিকে বাদ দিলেও অনুপ্রবেশকারী হাফিজুর রহমান তালুকদারকে রেখে প্রস্তুতি কমিটি চূড়ান্ত করে জেলা আওয়ামীলীগ। কমিটিতে আহবায়ক হিসাবে রাখা হয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আছাব উদ্দিন সরদারকে।
কমিটির সদস্যরা হলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আলতাব উদ্দিন, বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়, সহসভাপতি সোহেল আহমদ, সিরাজ উদ দৌলা তালুকদার, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. আজাদুল ইসলাম রতন, হুমায়ুন রশীদ লাভলু, জাহাঙ্গীর চৌধুরী, উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ মিয়া, লুৎফুর রহমান এওর, যুবলীগ নেতা মকসদ আলম, আবু আব্দুল্লাহ চৌধুরী মাসুদ, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা অভিরাম তালুকদার, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুস, হাজী ছাদিকুর রহমান চৌধুরী, ছাদ উদ্দিন মিয়া, মারফত মিয়া, জগদীশ সামন্ত, ফারহান চৌধুরী ফারুক, জয় কুমার বৈষ্ণব, দুদু মিয়া, ধনীর রায়, শফিক মিয়া, অ্যাড. শহীদুল হাসমত খোকন, শাহরিয়ার আহমেদ শামীম, ফজলে রাব্বি, ফুয়াদ আল নোমান, বিকাশ চন্দ্র রায়, হারুন মিয়া, নুরুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রঞ্জন কুমার রায়, আব্দুর রশিদ, সেবুল রেজা চৌধুরী, পরিতোষ রায়, শম্ভু সেন তালুকদার, সৌম্য চৌধুরী, জহিরুল ইসলাম জুয়েল, শামীম হোসেন, মাহবুবুর রহমান সোহেল, শংকর নাগ, শিবলী আহমেদ বেগ, ছাত্রলীগ দিরাই ইউনিটের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক আসাদ উল্লা, একরার হোসেন।